২৫ আগস্ট ২০১৯

ফেনীর সোনাগাজীতে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

-

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চরদরবেশ ইউনিয়নের পশ্চিমচর দরবেশসহ চর ইঞ্জিমান এলাকায় গতকাল ভোরে হাজেরা আক্তার (৩৬) নামে এক গৃহবধূকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
পুলিশ, স্থানীয় লোকজন ও পারিবারিক সূত্র জানায়, প্রতিদিনের মতো গত শুক্রবার রাতে খাবার খেয়ে উপজেলার চর ইঞ্জিমান এলাকার আব্বাস আলী মাঝি বাড়ির আনার আহম্মদের স্ত্রী দুই সন্তানকে সাথে নিয়ে ঘরের একটি কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। অন্য একটি কক্ষে অন্য দুই সন্তানকে নিয়ে আনার আহম্মদও ঘুমিয়ে যান। ভোরে ফজরের নামাজ পড়ার জন্য ঘুম থেকে ওঠে আনার আহম্মদ স্ত্রী হাজেরা আক্তারকে ডাকতে থাকেন। কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে শয়ন কক্ষে গিয়ে বিছানায় তাকে না দেখে বাইরে গিয়ে খুঁজেন। দীর্ঘক্ষণ খোঁজাখুঁজির পরও তাকে না পেয়ে বাড়ির লোকজনকে বিষয়টি জানান। পরে সবাই মিলে বাড়ির আশপাশে খোঁজার সময় বাড়ির উত্তর পাশে বেলায়েত হোসেনের টয়লেটের ট্যাংকির উপর ক্ষত-বিক্ষত অবস্থায় হাজেরা আক্তারের লাশ পড়ে থাকতে দেখে সবাই মিলে চিৎকার করতে থাকেন। খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যার ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।
নিহতের স্বামী আনার আহম্মদ জানান, ঘুমানোর পর রাতে তার স্ত্রী প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে বের হয়েছিলেন। ফজরের নামাজ পড়ার জন্য ডাকতে গিয়ে শয়ন কক্ষে না পাওয়ায় ধারণা করছেন এরপর হয়তো আর ঘরে ফিরেননি। কারা তার স্ত্রীকে হত্যা করেছে, তা-ও তিনি জানেন না।
একই দিন দুপুরে পুলিশ সুপার খোন্দকার নুরুন্নবী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী মনিরুজ্জামান, সোনাগাজী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মো: সাইকুল আহমেদ ভূঁইয়া, সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন আহমেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিহতের পরিবার ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলেন।
এ ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই সাইফুর রহমান বাদি হয়ে অজ্ঞাতদেরকে আসামি করে গতকাল বিকেলে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

 


আরো সংবাদ