২২ আগস্ট ২০১৯

কাশ্মিরের জন্য ভারতকে চরম মূল্য দিতে হবে : ইমরান খান

-

ভারতের যেকোনো প্রতিক্রিয়ার শক্ত জবাব দেয়া হবে বলে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্দেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি বলেছেন, ভারত অধিকৃত কাশ্মিরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পদক্ষেপ একটি ‘কৌশলগত ভুল’ আর এ জন্য তাকে ‘চরম মূল্য দিতে হবে’।
তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে গোয়েন্দা তথ্য রয়েছে, ভারত পুলওয়ামা পরবর্তী বালাকোট আক্রমণের চেয়ে ভয়াবহ পরিকল্পনা নিয়ে আগাচ্ছে।’ নরেন্দ্র মোদিকে উদ্দেশ করে ইমরান খান বলেন, ‘এটা আপনার প্রতি পাকিস্তানের বার্তা, আপনি ইট মারলে আমরা পাটকেল ছুড়ব। সেনাবাহিনী প্রস্তুত আছে, শুধু সেনাবাহিনী নয়, গোটা জাতি সেনাদের সঙ্গে লড়াইয়ে অংশ নেবে। আমরা প্রস্তুত থাকব, আপনি যা-ই করুন, আমরা শেষ দেখে ছাড়ব। আক্রমণাত্মক যুদ্ধ ইসলামবিরোধী, তবে স্বাধীনতার জন্য মুসলমানরা যতবার লড়াই করেছে, বড় বড় সেনাবাহিনীকে পরাজিত করেছে।’
গতকাল বুধবার আজাদ কাশ্মিরের মুজাফফরাবাদে আইনসভায় দেয়া বক্তৃতায় এসব কথা বলেন ইমরান খান। এর আগে আজাদ কাশ্মিরের প্রধানমন্ত্রী রাজা ফারুক হায়দার তার বক্তব্যে বলেন, ভারত জম্মু ও কাশ্মিরের পর পাকিস্তানে সমস্যা সৃষ্টি করবে।
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, এটা কাশ্মিরেই থামবে না। ঘৃণাপূর্ণ এই আদর্শ পাকিস্তানের দিকেও আসবে। ভারত অধিকৃত কাশ্মির থেকে বিশ্ববাসীর দৃষ্টি সরাতে ভারত আজাদ কাশ্মিরে হাত দিতে পারে।
পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ভারত অধিকৃত কাশ্মিরিদের প্রতি সংহতি জানিয়ে গতকাল আজাদ কাশ্মিরে যান ইমরান খান। তিনি বলেন, পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে আমি আমার কাশ্মিরি ভাইবোনদের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করছি।
ইমরান খান বলেন, হিন্দু জাতীয়বাদ রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) আদর্শ। নাৎসিদের মতো করে ভারত থেকে মুসলিমদেরকে নিধনের কথা বলে এই আদর্শ। মোদি শিশুকাল থেকে এই আরএসএসের সদস্য।
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কাশ্মিরে কারফিউ তুলে নেয়ার পর সেখানে কী পরিমাণ বিভৎসতা দেখতে হবে তা ভাবতেও ভয় হচ্ছে।’
‘মোদি কাশ্মিরে বড় ধরনের কৌশলগত ভুল করেছেন। তিনি চূড়ান্ত খেলায় নেমেছেন। কাশ্মির ইস্যুর আন্তর্জাতিকীকায়ন হয়েছে। আগে কাশ্মির নিয়ে কথা বলা যেত না। এখন বিশ্ববাসীর দৃষ্টি কাশ্মিরে। আমি কাশ্মিরের দূত হিসেবে কাজ করব। কাশ্মিরের কণ্ঠস্বর হতে চাই আমি। কাশ্মিরিরা মোদির পাস করা বিল মেনে নেবে না। তারা পরাজিত হবে না। তারা রাস্তায় নেমে এসেছে, তাদের ভয় চলে গেছে, বিবিসিতে আমরা সেটা দেখেছি। শুধু একটি সাহসী জাতি এভাবে রাজপথে নামতে পারে।’


আরো সংবাদ