২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পবিত্র আশুরা পালিত

-

যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে গত মঙ্গলবার সারা দেশে পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে।
কারবালার শোকাবহ ঘটনাসহ অন্যান্য কিছু ঐতিহাসিক ঘটনার কারণে আশুরার দিনটি বিশ্ব মুসলিমের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। হিজরি ৬১ সনের এই দিনে সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়ে মহানবী হজরত মুহাম্মদ সা:-এর দৌহিত্র হজরত ইমাম হোসাইন রা: সপরিবারে কারবালার ফোরাত নদীর তীরে এজিদ বাহিনীর হাতে শহীদ হন। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা নফল রোজা, নামাজ, জিকির-আসকারের মধ্য দিয়ে দিনটি পালন করেন। দিনটির বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ তুলে ধরে আলোচনা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করে বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান।
আশুরা উপলক্ষে গত মঙ্গলবার সরকারি ছুটি ছিল। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আগের দিন সোমবার বাদ জোহর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ‘আশুরার তাৎপর্য ও শিক্ষা’ শীর্ষক ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে ওয়াজ করেন বায়তুল মোকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। আশুরা উপলক্ষে পুরান ঢাকার হোসেনি দালানের সামনে থেকে গত মঙ্গলবার সকালে শিয়া সম্প্রদায়ের লোকেরা তাজিয়া মিছিল বের করে। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে এই তাজিয়া মিছিলটি রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। কালো-লাল-সবুজের নিশান উড়িয়ে, কারবালার মাতম করে হাজার হাজার মানুষ। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অনেকে ‘হায় হোসেন’ বলে নিজের উন্মুক্ত বুক পিঠে আঘাত করে রক্তাক্ত করে। তাজিয়া মিছিলটি বকশীবাজার, উর্দ্দু রোড, লালবাগ চৌরাস্তা, গৌর-এ শহীদের মাজার, আজিমপুর, নিউ মার্কেট হয়ে ঝিগাতলা (ধানমন্ডি লেকের কাছে) গিয়ে শেষ হয়। মিছিলের পুরো আগে-পেছনে ছিল পুলিশ, র্যাবসহ বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
জাতীয় দৈনিকগুলোতে গত মঙ্গলবার আশুরার তাৎপর্য নিয়ে বিশেষ প্রবন্ধ, নিবন্ধ প্রকাশ করা হয়। রেডিও-টেলিভিশনে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হয়।
রাজবাড়ী সংবাদদাতা জানান, রাজবাড়ীতে পবিত্র আশুরা যথাযোগ্য মর্যাদা ও শোকাগত অবস্থা পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গত মঙ্গলবার সকালে রাজবাড়ী শহরে এক বিশাল শোক ও তাজিয়া মিছিল বের হয়।
অপর দিকে ধুঞ্চি ইমাম বাড়ির আয়োজনে কাসেদের দল মঙ্গলবার দুপুরে গোদার বাজার ইমাম বাড়িতে মাতম শোক সভা ও পরে রাজবাড়ী শহরে গোলাম মোস্তফা মেম্বারের নেতৃত্বে এক বিশাল তাজিয়া মিছিল ও রেলওয়ে মাঠে লাঠির কসরত প্রদর্শন করে।
রাজবাড়ী আনজুমান-ই-কাদেরিয়া কমিটি প্রতি বছরের এবারো এই মিছিলটি শহরের প্রধান সড়কের খানকা শরিফ মসজিদ প্রাঙ্গণ থেকে শুরু করে শহর প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে মিলিত হয়।
আনজুমান-ই-কাদেরিয়ার জেলা সভাপতি ও চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি এবং জেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি কাজী এরাদত আলীর নেতৃত্বে এই শোক ও তাজিয়া মিছিলটি বের হয়।
খুলনা ব্যুরো জানায়, খুলনায় গত মঙ্গলবার যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদায় পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে।
এ উপলক্ষে শিয়া সম্প্রদায়ের খুলনার সর্ববৃহৎ সংগঠন আঞ্জুমান-এ-পাঞ্জাতানি ট্রাস্ট ১০ দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন করে। মঙ্গলবার কর্মসূচির শেষ দিনে আলোচনায় অংশ নেন ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ হুজ্জাতুল ইসলাম সৈয়দ ইব্রাহিম খলিল রাজাভী। আলোচনা সভা শেষে হজরত ইমাম হোসাইন রা:-এর শাহাদত স্মরণে নগরীর আলতাপোল লেনস্থ আঞ্জুমান-এ-পাঞ্জাতানি ট্রাস্ট ইমাম বাড়ি থেকে একটি শোক মিছিল বের হয়।
শোক ও মাতম মিছিল নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় ইমামবাড়িতে গিয়ে শেষ হয়।
চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, কারবালা স্মরণে পবিত্র আশুরার দিনে চট্টগ্রামে তাজিয়া মিছিল বের করা হয়। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম নগরীর সদরঘাট ইমামবাড়া থেকে বের হয় মিছিল। পরে এটি নগরীর নিউমার্কেট, জিপিও, কোতোয়ালি মোড় ঘুরে আবার সদরঘাট ইমামবাড়ায় ফিরে আসে।
ইমামবাড়া থেকে বের হওয়া মিছিলে ঢল নামে মানুষের। এতে অংশগ্রহণকারীদের অনেকের পরনে কালো পাজামা-পাঞ্জাবি দেখা যায়। হাতে হাতে ছিল ঝালর দেয়া লাল, কালো, সবুজ ঝাণ্ডা।


আরো সংবাদ