১৭ অক্টোবর ২০১৯
প্রেসিডেন্টের সমাবেশে হামলায় নিহত ২৪

জাতিসঙ্ঘের আফগান মিশনে ভেটো দেয়ার ইঙ্গিত চীনের

-

আফগানিস্তানে জাতিসঙ্ঘের মিশনের (ইউএনএএমএ) মেয়াদ বৃদ্ধির একটি খসড়া প্রস্তাব নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। চীন এ প্রস্তাবে ভেটো দিতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে। কারণ প্রস্তাবটিতে চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোড প্রকল্পের কোনো উল্লেখ নেই। কূটনীতিকেরা সোমবার এ খবর জানিয়েছেন।
জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যরাষ্ট্র প্রস্তাবটি নিয়ে সব পক্ষের মধ্যে একটি চূড়ান্ত সমঝোতা অর্জনের লক্ষ্যে সোমবারের পূর্বনির্ধারিত ভোট গ্রহণ এক দিন পিছিয়ে দেয়। আফগানিস্তানে জাতিসঙ্ঘ মিশনের মেয়াদ গতকাল মঙ্গলবার শেষ হয়েছে।
প্রস্তাবটি অনুমোদন পেতে কমপক্ষে ৯ ভোট প্রয়োজন এবং যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ফ্রান্স, রাশিয়া ও ব্রিটেন এ প্রস্তাবে ভেটো না দিলেই কেবল এটি পাস হবে। স্থগিতাদেশের বিষয়টি সামনে রেখে কূটনীতিকেরা বলেছেন যে, জার্মানি এবং ইন্দোনেশিয়ার আনা এ প্রস্তাবে চীন তার বৈশ্বিক বেল্ট এবং সড়ক অবকাঠামো প্রকল্পের কোনো উল্লেখ না থাকায় ভেটো দিতে পারে। চীনের জাতিসঙ্ঘের মিশন অফিস তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।
এদিকে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির এক নির্বাচনী সমাবেশে গতকাল মঙ্গলবার বোমা হামলায় কমপক্ষে ২৪ জন নিহত হয়েছে। তবে সমাবেশে বোমা হামলায় আফগান এই প্রেসিডেন্ট অক্ষত রয়েছেন বলে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন।
স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকালের দিকে রাজধানী কাবুলের উত্তরাঞ্চলের পারওয়ান প্রদেশের চারিকরে নির্বাচনী সমাবেশে গনি ভাষণ দেয়ার সময় এই হামলা হয়। দুই বোমা হামলার দায় স্বীকার করেছে তালেবান। একটি হামলা চালানো হয়েছে প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির নির্বাচনী সভার কাছে। অপর হামলাটি সংঘটিত হয় কাবুলের গ্রিন জোনে। হামলার দায় স্বীকার করে দেয়া এক বিবৃতিতে তালেবান দাবি করেছে, নিরাপত্তাবাহিনীকে লক্ষ্যবস্তু বানাতেই এই হামলা চালিয়েছে তাদের একজন আত্মঘাতী সদস্য।
আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। দ্বিতীয় পাঁচ বছর মেয়াদের জন্য এ নির্বাচনেও প্রার্থী হচ্ছেন গনি। নির্বাচনকে সামনে রেখে এক সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। আশরাফ গনি যখন ভাষণ দিতে যাচ্ছিলেন ঠিক সেই সময় বিস্ফোরণটি ঘটানো হয়।
তালেবান আসন্ন নির্বাচন বয়কটের ডাক দিয়েছে। ভোটাররা যেন ভোটকেন্দ্রমুখী না হয় তার জন্য আফগানিস্তানের ও বিদেশী বাহিনীগুলোর সাথে লড়াই তীব্র করে তোলার শপথ নিয়েছেন তালেবান কমান্ডাররা। মঙ্গলবারের হামলা সম্পর্কে তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ এক বিবৃতিতে বলেন, দু’টি হামলাতেই তালেবান জড়িত ছিল। আফগান নিরাপত্তাবাহিনীকে লক্ষ্য করেই তারা এই হামলা চালিয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচনী সভায় যারা প্রেসিডেন্ট গনির সুরক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন তাদের লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে তালেবান। একই সাথে অন্যান্য নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যদেরও হত্যার পরিকল্পনা ছিল।
প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কেউ হতাহতের শিকার হয়েছেন কি না তা এখনো জানা যায়নি। পারওয়ান প্রাদেশিক গভর্নরের মুখপাত্র ওয়াহিদা শাহকার জানান, নির্বাচনী সভার প্রবেশদ্বারের কাছে এই হামলা চালানো হয়। সেখানকার হাসপাতালের প্রধান আবুল কাসিম সানজিন জানিয়েছেন, হতাহতদের মধ্যে শিশুও রয়েছে। তিনি বলেন, হতাহতদের বেশির ভাগই বেসামরিক নাগরিক বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছেছে। বিস্ফোরণে হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে।
পারওয়ানে হামলার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মঙ্গলবার কাবুলের গ্রিন জোনে আরেকটি বিস্ফোরণ ঘটেছে। আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, মার্কিন দূতাবাস ও ন্যাটো সদর দফতরের কাছে এই হামলার দায়ও স্বীকার করেছে তালেবান। নিহতদের মধ্যে একজন মার্কিন চাকরিজীবীও রয়েছেন। তবে তার নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি। এক দিন আগেই মার্কিন প্রতিরক্ষাবাহিনীর বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ‘গ্রিন বেরেট’ সদস্যও প্রাণ হারিয়েছিলেন। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএসের এক খবরে হামলায় মার্কিন নাগরিক নিহতের খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। তালেবানের সাথে শান্তি আলোচনা বাতিলের পর এ নিয়ে দুইজন মার্কিন নাগরিক তালেবানের হামলায় প্রাণ হারালেন।
আফগানিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কয়েক মাস ধরে আলোচনার পর সম্প্রতি চুক্তির দ্বারপ্রান্তে পৌঁছানোর কথা জানায় তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা। তবে গত সপ্তাহে ওই আলোচনাকে মৃত ঘোষণা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর আফগান প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। আর এর মধ্যে দেশজুড়ে হামলা অব্যাহত রয়েছে। তালেবান সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, আফগান সরকার ও বিদেশী বাহিনীর ওপর হামলা তীব্র করে জনগণকে ভোট দেয়া থেকে বিরত রাখা হবে।
গত সপ্তাহে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তালেবানের সাথে উচ্চপর্যায়ের আলোচনা বাতিল করে দেন। তিনি দাবি করেন, আলোচনার চূড়ান্তপর্যায়ে রাজধানী কাবুলে তালেবানের বোমা হামলায় একজন মার্কিন সেনাসহ ১২ ব্যক্তি নিহত হওয়ার পর ওই আলোচনা বন্ধের সিদ্ধান্ত নেন। তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে জানা গেছে যে, শান্তি আলোচনা চূড়ান্তপর্যায়ে ছিল এবং যেকোনো মুহূর্তে শান্তিচুক্তি সই হত পারত।
বেঁকে বসেছে চীন : জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ প্রতি বছর ইউএনএএমএ’র অনুমোদন নবায়ন করে। ২০১৬, ২০১৭ এবং ২০১৮-এর রেজুলেশনগুলোর মধ্যে বাণিজ্য ও ট্রানজিটের সুবিধার্থে চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোড উদ্যোগের একটি প্রসঙ্গকে স্বাগত জানানো এবং অন্তর্ভুক্ত করা হয়। কিন্তু চলতি বছরের মার্চ মাসে আবারো এই মিশনের মেয়াদ বাড়ানোর সময় এলে যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য পশ্চিমা কাউন্সিল সদস্য চীনের এই বিষয়টি রেজুলেশন থেকে সরিয়ে ফেলতে আহ্বান জানায়। ফলে এ বিষয়ে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে একধরনের অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।
সে সময় নিরাপত্তা পরিষদ কৌশল অবলম্বন করে বিষয়টি এড়িয়ে আফগান মিশনের মেয়াদ ছয় মাস বাড়িয়েছিল।
কূটনীতিকেরা বলেন, মিশনটি চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেয়ার জন্য চীন একটি সংক্ষিপ্ত খসড়া রেজুলেশনে ভোটের প্রস্তাব দেয়ার পরিকল্পনা করেছিল, যা পদ্ধতিগতভাবে রোলওভার হিসেবে বিবেচিত। তবে তারা এ-ও বলেছেন যে, নিরাপত্তা পরিষদের বেশ কয়েকজন সদস্য চীনের প্রস্তাব এড়িয়ে চলার কথা বিবেচনা করায় প্রয়োজনীয় ৯টি ভোট পেতে এটি ব্যর্থ হতো। এ দিকে বেইজিংয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিং বলেন, ‘আমি জানি না এই খবরটি কোথা থেকে এসেছে।’ তিনি বলেন, আফগানিস্তানের পরিস্থিতি অত্যন্ত নাজুক পর্যায়ে রয়েছে এবং চীন সেখানে পুনর্গঠনের প্রয়োজনে জাতিসঙ্ঘের সহায়তা মিশনকে সমর্থন করে। চীন আশা করে যে নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা ‘অতীতের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে যৌথভাবে ঐকমত্য রক্ষা করবে। একে অপরের উদ্বেগকে সম্মান করবে। আফগান ইস্যুতে গঠনমূলক সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে এবং নিরাপত্তা পরিষদের ঐক্যকে রক্ষা করবে।’ ভারপ্রাপ্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত জোনাথন কোহেন ‘আফগান প্রস্তাবকে জিম্মি’ করার জন্য চীনের নিন্দা করেন। তিনি বলেন ‘আফগানিস্তানের জনগণের চেয়ে চীন নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে।’
২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত জাতিসঙ্ঘ মিশন আফগানিস্তানকে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রস্তুতিতে সহায়তা করছে এবং আফগান সরকার ও তালেবানদের মধ্যে শান্তি আলোচনা আয়োজনের জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। চলতি মাসেই তালেবোনের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের শান্তি আলোচনা নস্যাত হয়ে যায়।


আরো সংবাদ

রিকশায় চড়ে ভাইরাল শামীম ওসমান গ্রামীণফোনের কাছে পাওনা সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকা আদায়ের ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা রোগী নিয়ে ফেরার পথে অ্যাম্বুলেন্সে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ : নিহত ৩ সীমান্তে গোলাগুলি : বিএসএফ সদস্য নিহত পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে কোনো সমস্যা নেই : সৌরভ ভারত থেকে প্রেমের টানে চলে আসা ৫ সন্তানের জননীকে নিজ দেশে হস্তান্তর ৩ বছরে বিদেশ সফর করেছেন বিদ্যুৎ বিভাগের ২৯৬১ কর্মকর্তা ওআইসির মানবাধিকার ঘোষণা ও নারীর অধিকার চাপাতি দিয়ে কোপানোর পর ‘ছাত্রদল-শিবির’ বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে পিতা গুম করল ছেলেকে ৫ম শ্রেণির মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ, প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার  

সকল