২০ অক্টোবর ২০১৯

প্রশিক্ষণ গ্রহণে ভারত যাচ্ছেন ৫৪ বিচারিক কর্মকর্তা

-

প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য ভারত যাচ্ছেন দেশের বিচার বিভাগীয় ৫৪ কর্মকর্তা। ভারতের মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের ভূপালে তারা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবেন। এসব কর্মকর্তার মধ্যে ৩৯ জনকে সরকার অনুমোদন দিয়েছে। বাকি ১৫ জনকে অপেক্ষমাণ হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে। আইন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সংশ্লিষ্ট তথ্য মতে, এসব কর্মকর্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৫ দিনের জন্য প্রশিক্ষণ দেবে ভারতের ভূপালে অবস্থিত ন্যাশনাল জুডিশিয়াল একাডেমি। প্রশিক্ষণের যাবতীয় অর্থ ব্যয় করবে ভারত সরকার। এতে বাংলাদেশ সরকারের আর্থিক কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।
সূত্র জানিয়েছে, প্রশিক্ষণের বিষয়বস্তু থাকবে দেয়ানি-ফৌজদারি আইন, মানবাধিকার আইন, মেডিকো-লিগ্যাল জুরিসপ্রুডেন্স, পরিবেশ আইন, চুক্তি আইন ও আদালতের ব্যবস্থাপনা প্রভৃতি।
প্রশিক্ষণের জন্য সিনিয়র সহকারী জজ, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার, মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট, সহকারী জজ পদমর্যাদাসহ ৩৯ জনকে অনুমোদন দিয়েছে সরকার। আগামী ৩০ অক্টোবর তারা ভারতের উদ্দেশে যাত্রা করবেন। ভূপালে এই বিচারিক কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ চলবে ১ নভেম্বর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত। প্রশিক্ষণ শেষে কর্মকর্তারা আগামী ১৭ নভেম্বর দেশে ফিরে এসে নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগ দেবেন।
একই একাডেমিতে (ভারতের ভূপাল) একই সময়ে প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহণের জন্য বাকি ১৫ বিচারিক কর্মকর্তাকে অপেক্ষমাণ হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে। এসব বিচারকদের ভারতে পাঠানোর জন্য বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট ইতোমধ্যেই সম্মতি প্রদান অর্থাৎ অনুমোদন দিয়েছেন।
এদিকে আইন মন্ত্রণালয়ে সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, গত দুই বছর পাঁচ মাসে কয়েক ধাপেই ভারত, জাপানসহ বেশ কয়েকটি দেশে নি¤œœ আদালতের বিচারকেরা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। এভাবে পর্যায়ক্রমে দেশের নি¤œ আদালতের প্রায় দেড় হাজারের বেশি বিচারককে প্রশিক্ষণের জন্য ভারত পাঠানো হবে। বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসের সদস্যদের সক্ষমতা বাড়ানোর লক্ষ্যে এই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্ট ও ভারতের ন্যাশনাল জুডিশিয়াল একাডেমির মধ্যে ‘বাংলাদেশী বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের ভারতে প্রশিক্ষণ ও সামর্থ্য উন্নয়ন’ শীর্ষক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। সমঝোতা অনুসারে দেশের এক হাজার ৫০০ বিচারক ও বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা পর্যায়ক্রমে প্রতিবেশী দেশটির জাতীয় ও বিভিন্ন রাজ্যের জুডিশিয়াল একাডেমিতে প্রশিক্ষণ ও সামর্থ বাড়ানোর কর্মসূচিতে অংশ নেবেন।


আরো সংবাদ