২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ১ সফর ১৪৩৯

যেকোনো অঙ্কের টাকা জমা রেখেই খোলা যাবে ব্যাংক হিসাব

-

আগামীতে যেকোনো অঙ্কের টাকা জমা রেখেই খোলা যাবে ব্যাংক হিসাব। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক গ্রাহকদের হিসাব খোলার সময় অর্থ জমার অঙ্ক চাপিয়ে দেয়া যাবে না। এমনকি ১০ টাকা জমা রেখেও যে কেউ ব্যাংক হিসাব খুলতে পারবেন। আর নতুন ব্যাংক হিসাব খুলতে পূরণ করতে হবে মাত্র দুই পৃষ্ঠার ফরম। এই ফরম হবে একপাতার এপিঠ-ওপিঠ অর্থাৎ ২ পৃষ্ঠা। সেখানে মাত্র অতি প্রয়োজনীয় ২০টি ঘর পূরণ করেই খোলা যাবে ব্যাংক হিসাব। এবং এতে প্রয়োজন হবে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি)।
গতকাল সচিবালয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে অনুষ্ঠিত ‘ব্যাংকের ব্যবহৃত ফরমগুলো সহজীকরণের’ জন্য গঠিত কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এ বি এম রহুল আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংক, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, এ-টু-আই, বিভিন্ন ব্যাংকের প্রতিনিধি ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এ ব্যাপারে কমিটির একজন সদস্য নয়া দিগন্তকে বলেছেন, ব্যাংকের হিসাব খুলতে গ্রাহকদের ভোগান্তি কমাতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। এতে সময় ও শ্রম-দুটোই কম হবে। আমরা ব্যাংক হিসাব খোলার ফরম সহজীকরণ আজ চূড়ান্ত করেছি। এখন এটি আজ বৃহস্পতিবার মন্ত্রিপরিষদে পাঠানো হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে তা আবার আমাদের কাছে পাঠালে এটি আমরা বাস্তবায়নের জন্য খুব তাড়াতাড়ি বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে পাঠাব। বাংলাদেশ ব্যাংক তখন হিসাব খোলার সংক্ষিপ্ত ফরমের নমুনাটি বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন ব্যাংকের কাছে পাঠাবে এবং নতুন নিয়মে এ মাস থেকে যেকোনো গ্রাহক ব্যাংকের হিসাব খুলতে পারবেন।
জানা গেছে, বর্তমানে কোনো নির্দেশনা না থাকার কারণে ব্যাংক হিসাব খোলার সময় ব্যাংকগুলো নিজেদের ইচ্ছামতো গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা জমা রাখে। কোন কোন ব্যাংক ২ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত নতুন হিসাবে টাকা জমা রাখতে গ্রাহককে বাধ্য করেন। শুধু তাই নয়, অভিযোগ রয়েছে, ন্যূনতম ৫০ হাজার টাকা জমা না রাখলে একটি বিদেশী ব্যাংকে কোনো গ্রাহক হিসাব খুলতে পারেন না।
এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের সুনির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা না থাকায় ব্যাংকগুলো এ স্বেচ্ছাচারিতা করছে। সরকার গঠিত কমিটি মনে করছে, হিসাব খোলার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের সীমা বেঁধে দিতে পারে না ব্যাংকগুলো। তাই এখন থেকে গ্রাহক ন্যূনতম টাকা জমা রেখে নতুন হিসাব পরিচালনা করতে পারবেন। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংককে মৌখিকভাবে ব্যবস্থা নিতে বলেছে ‘ব্যাংকের ব্যবহৃত ফরমগুলো সহজীকরণের জন্য গঠিত কমিটি।’
গত ২২ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সভাপতিত্বে বার্ষিক উদ্ভাবনী কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নবিষয়ক পর্যালোচনা সভায় ব্যাংকে ব্যবহৃত ফরমগুলো সহজীকরণের উপায় নির্ধারণের জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগকে বলা হয়। এর বাস্তবতায় ৫ সেপ্টেম্বর এ সম্পর্কিত একটি কমিটি গঠন করা হয়।
উল্লেখ্য, বর্তমানে বিভিন্ন ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট বা হিসাব খুলতে ‘গাদা গাদা’ পৃষ্ঠার ফরম পূরণ করতে হয়। দিতে হয় প্রায় একশ’র বেশি ধরনের বিভিন্ন তথ্য। যার মধ্যে অনেকগুলো আবার অপ্রয়োজনীয় এবং বেশ কিছু আবার ব্যাংক কর্তৃক পূরণ করা প্রয়োজন হয়। কিন্তু তা গ্রাহকের ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু আগামী মাস থেকে সব কিছু বাদ দিয়ে শুধুমাত্র ব্যাংকের হিসাব খোলার ফরম হবে দুই পৃষ্ঠার। কিছু সুনির্দিষ্ট তথ্য পূরণ ও জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে যেকোনো বাংলাদেশী নাগরিক ব্যাংকের হিসাব খুলতে পারবেন। লাগবে না সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের একজন হিসাবধারীর পরিচয় প্রদান প্রত্যায়নও। তবে জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে সে ক্ষেত্রে জন্মনিবন্ধন সনদ বা পাসপোর্টের কপি থাকলেও খোলা যাবে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট। তাও না থাকলে ওয়ার্ড বা এলাকার চেয়ারম্যানের প্রত্যায়ন দিয়েও খোলা যাবে ব্যাংক হিসাব।


আরো সংবাদ