২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০

অমিত সাহাকে অবশ্যই আসামি করতে হবে : আবরারের বাবা

-

বুয়েটের নিহত শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের কুষ্টিয়ার গ্রামের বাড়িতে এখন চলছে শোকের মাতম। পুরো পরিবারে আতঙ্ক কাজ করছে। মঙ্গলবার ফাহাদের লাশ দাফনের পর থেকেই ফাহাদের পিতা-মাতাসহ সবাই কুমারখালীর রায়ডাঙ্গা গ্রামের বাড়িতে অবস্থান করছেন। ফাহাদের মা কিছু সময় পরপর আদরের ছেলের শোকে চোখের পানিতে বুক ভাসাচ্ছেন।
ভোরে ফাহাদের রায়ডাঙ্গার বাড়িতে এই প্রতিবেদকের সাথে আলাপ হয় আবরারের পিতা বরকত উল্লাহ, কাকা আমিরুল ইসলাম ও প্রকৌশলী মামিরুল ইসলামের সাথে। আবরারের পিতা জানান, ফাহাদের মৃত্যুর খবর শুনে আমি বুয়েটে যেয়ে ছেলের লাশ নিয়ে আসি। এ ঘটনায় বাদি হয়ে মামলা করেছি। পুলিশ আসামি শনাক্ত করে তাদের নাম লিখে মামলার কপিতে আমার স্বাক্ষর নিয়েছে কিন্তু আমার ছেলে হত্যার ঘটনার মূল হোতা অমিত সাহার নাম নেই। অমিত সাহাকে কেন আসামি করা হয়নি এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, আমিতো কাউকে চিনি না পুলিশ যাদের নাম লিখেছে শুধু তাদের নাম দেয়া হয়েছে। পুলিশ অমিত সাহার নাম বাদ রেখেছে। ফাহাদের পিতা বলেন, মামলায় অবশ্যই অমিত সাহাকে আসামি যুক্ত করে তাকে আইনের আওতায় আনতে হবে। অমিতকে কেন মামলার আসামি থেকে বাদ দেয়া হলো তা আমার বোধগম্য নয়। তিনি জানান, ছেলে হত্যার মামলা চালিয়ে যাব। জীবনের কোনো ঝুঁকি এলেও ছেলে হত্যার মামলা চালিয়ে আসামিদের উপযুক্ত শাস্তির আওতায় আনব। ফাহাদের পরিবারের সদস্যরা আশা করছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন মা হিসেবে আমার সন্তান হত্যাকারীদের উপযুক্ত বিচার দেখতে চাইবেন। তিনি এ ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।

 


আরো সংবাদ

ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে জনসচেতনতার বিকল্প নেই নানা কর্মসূচিতে চুড়িহাট্টায় নিহতদের স্মরণ ঢাকার সোনাইমুড়ী মানবকল্যাণ ফাউন্ডেশনের কৃতী শিক্ষার্থী সংর্বধনা র্যাবের তিন স্তরের নিরাপত্তা থাকছে হ্যালিকপ্টার সেনাবাহিনী কাবাডি প্রতিযোগিতা সমাপ্ত ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ৩১ পরিবারের পাশে ডিএসসিসি আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আশুলিয়ায় ৫ বাড়ি ও ১০ দোকানে হামলা আবদুল গফুর ভাষা আন্দোলনের উজ্জ্বল নক্ষত্র

সকল