১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

ইডেনে আজ দিবা-রাত্রি গোলাপি বলের টেস্ট

-

শত বছরের ঐতিহ্যে ঘেরা কলকাতার ইডেন সেজেছে নতুন এক আঙ্গিকে। গোলাপি বলে দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচ। ভারতের যেমন এটা প্রথম, বাংলাদেশেরও। এর আগে সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়া সফরে ভারতকে গোলাপি বলে টেস্ট ম্যাচ খেলার প্রস্তাব দিলে বিরাট কোহলিরা নাকচ করে দেন। এবারো এমনটি ছিল না বাংলাদেশের সিরিজে। কিন্তু শেষ মুহূর্তে এসে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নতুন সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী হঠাৎ করেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে ইডেন টেস্টে গোলাপি বলের টেস্ট ম্যাচ খেলার প্রস্তাব দেন। বাংলাদেশ সেটা ফেলতে পারেনি। যদিও গোলাপি বলের কোনো ম্যাচ খেলার অভ্যাসই নেই বাংলাদেশের। সেটা আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ম্যাচেও। ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে একবার ক্রিকেটাররা খেললেও আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেনি তারাও। কলকাতা টেস্টে এসজি বল দিয়ে হবে খেলা। এর আগে ভারতে যে খেলা হয় সেটা কোকাবুরা ব্র্যান্ডের বল দিয়ে। সব মিলিয়ে দুই দলেই এ নিয়ে একটা উত্তেজনা। এটা দুই দেশের ঐতিহাসিক একটা মুহূর্তও। কিন্তু ম্যাচের আগে অন্তত একটা প্রস্তুতি ম্যাচ হলেও এ আক্ষেপটা করতেন না তারা; যা করছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হকও।
যেহেতু দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচ, তাই খেলা শুরু বেলা দেড়টায়। এ ম্যাচ ঘিরে বেশ কিছু দিন ধরেই আলোচনা দুই দেশেই। দিবা-রাত্রির ম্যাচ, তাই শিশির একটা ফ্যাক্টর। সেটা কিভাবে সামাল দেবেন। গোলাপি বল ওই শিশিরে ভিজে কেমন রূপ ধারণ করবে, সেটা পেস বোলাররা সুবিধা পাবে, না স্পিনাররা। ফিল্ডিং হবে কেমন? অনেক প্রশ্ন এসে জড়ো হয়েছে। তবে এটা একটা উৎকণ্ঠারও ম্যাচ। আর এসব প্রশ্নের উত্তর মিলবে সরাসরি খেলাতেই।
এটা তো গেল ম্যাচের খবর। এর বাইরেও অনেক আয়োজন এ ম্যাচ ঘিরে। সাধারণ এক টেস্ট ম্যাচ; যা আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেরও ম্যাচ অবশ্য। কিন্তু এতে উপস্থিত থাকবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ দুই দেশের সাবেক অনেক ক্রিকেট তারকা, সঙ্গীতশিল্পীসহ অনেক অনেক কিছু। বৈমানিকরা প্যারাসুট ধরে নেমে আসবেন মাঠে গোলাপি বল নিয়ে। তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রীর হাতে। সেই বলেই খেলা। থাকছে ম্যাচের আগে ও বিরতিতে অনেক প্রোগ্রাম। খেলাটা উপভোগ করতেও ইডেনে দর্শক ঢল নামবে। কারণ খেলার প্রথম চার দিনের সব টিকিট এরই মধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। সব মিলিয়ে দুই দেশেই এ নিয়ে একটা উৎসব ভাব! কী হয়, থাকছে সে উৎকণ্ঠাও।
ইন্দোরে প্রথম টেস্ট ম্যাচে বাংলাদেশ ব্যাটে বাজে পারফরম্যান্স করে ইনিংস ব্যবধানে হেরে যায়। এবার ভারতের বিপক্ষে লড়াইয়ের প্রত্যয়। মুমিনুল সেটাই জানিয়েছেন। আক্ষেপ করে বলেছেন, গোলাপি বলে আমরা কখনই খেলিনি। ঘরোয়া ম্যাচেও না। অথচ টেস্ট ম্যাচ খেলছি। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিরও এমন আক্ষেপ। তিনি বলেন, ‘শিডিউল করার আগে এ সিদ্ধান্ত নিলে মাঝে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সময় হয়তো থাকত। কিন্তু সেটা হয়নি। ফলে ম্যাচ খেলার কোনো গ্যাপই হয়নি।
এ ম্যাচে দুই দলের একাদশ কিভাবে সাজানো হবে স