১১ ডিসেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট ম্যাচের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ-ভারত ঐতিহাসিক দিবা-রাত্রি টেস্ট ম্যাচের উদ্বোধন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি : বাসস -

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সাথে নিয়ে ঘণ্টা বাজিয়ে ইডেন গার্ডেনে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার টেস্ট ম্যাচের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন। গতকাল দুপুরে ভিভিআইপি গ্যালারিতে রক্ষিত ঘণ্টা বাজিয়ে ভারতে প্রথম দিবা-রাত্রির এ ঐতিহাসিক টেস্ট ম্যাচ উদ্বোধন করেন তারা।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি, ভারতের ক্রিকেট কিংবদন্তি শচিন টেন্ডুলকার, ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলিসহ ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ঢাকায় অনুষ্ঠিত প্রথম টেস্ট ম্যাচে অংশগ্রহণকারী উভয় দেশের খেলোয়াড়রা এ সময় মাঠে উপস্থিত ছিলেন।
গোলাপি বলে প্রথমবারের মতো পাঁচ দিনের টেস্ট ম্যাচ আয়োজনকে কেন্দ্র করে যেন পুরো ইডেন গার্ডেনকে বর্ণাঢ্য সাজে সাজানো হয়। ফেয়ার প্লে প্ল্যাকার্ডবাহী শিশু থেকে শুরু করে স্কোরবোর্ড, এমনকি ম্যাচের টস কয়েনটিও গোলাপি বর্ণের ছিল।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী ক্রিকেটের ঐতিহ্যবাহী ভেনু কলকাতার ইডেন গার্ডেনে পৌঁছলে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি তাকে স্বাগত জানান। প্রধানমন্ত্রী প্রথম সেশনের খেলা উপভোগ করে হোটেলে ফিরে যান। সন্ধ্যায় তিনি পুনরায় স্টেডিয়ামে ফিরে বেঙ্গল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেন। পরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকায় ফেরেন প্রধানমন্ত্রী।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতায় ঐতিহাসিক দিবা-রাত্রির এই টেস্ট ম্যাচ দেখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণ জানান। এর আগে বিসিসিআইর সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি কলকাতায় দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ খেলা দেখতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।
এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কলকাতা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করলে কলকাতার মেয়র এবং পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নগর উন্নয়ন এবং পৌরসভাবিষয়ক মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী, বাংলাদেশে ভারতের হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাস ও বিসিসিআইর সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান।
ট্রুডোকে অভিনন্দন : কানাডার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দ্বিতীয়বার শপথ নেয়ায় জাস্টিন পিয়ের জেমস ট্রুডোকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত বৃহস্পতিবার কানাডার প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রেরিত এক পত্রে বলেন, আপনার দেশের জনগণ আপনার নেতৃত্ব এবং জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতার প্রতি আস্থা ব্যক্ত করেছে। প্রধানমন্ত্রী ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধে ট্রুডোর পিতা কানাডার তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী পিয়ের এলিয়ট ট্রুডোর গুরুত্বপূর্ণ সমর্থনের কথা স্মরণ করেন।
তিনি বলেন, এলিয়ট ট্রুডো ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যৌথভাবে প্রতিষ্ঠিত ভিত্তি আমাদের মধ্যকার সম্পর্কের নির্দেশনা হিসেবে কাজ করছে। তিনি কানাডাকে বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে অভিহিত করেন।


আরো সংবাদ

ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলায় তদন্তের নির্দেশ অনুমতি ছাড়া বিদেশী শিক্ষার্থী ভর্তি করা যাবে না ডাকসুর উদ্যোগে ঢাবিতে বইমেলা শুরু স্পিকারের সাথে তুরস্কের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ নতুন রঙে মুদ্রিত ৫০ টাকা মূল্যমানের ব্যাংক নোট চালু ৪০তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু ৪ জানুয়ারি এনামুল বাছিরের জামিন আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ রোহিঙ্গাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে বাংলাদেশের উদ্বেগ জানালেন সেনাপ্রধান মিয়ানমারের সেনা কর্মকর্তাদের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা কবি নজরুল কলেজ সাংবাদিক সমিতি : সভাপতি আরিফ সম্পাদক সাজ্জাদ আবারো এক বছরের চুক্তিতে প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান মমতাজ উদ্দিন

সকল