২০ নভেম্বর ২০১৯

আত্মবিশ্বাসী  রুপনা, নতুন চমক স্বপ্না

২০১৬ সাল থেকে বাংলাদেশ দলের পোষ্টের নীচে রুপনা চাকমা। তার অভিষেক গত বছর তাজিকিস্তানে অনুষ্ঠিত এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ রিজিওনাল ফুটবলে। আর এখন অনূর্ধ্ব-১৫ দল থেকে সিনিয়র জাতীয় দল, সব টিমেরই গোলরক্ষক তিনি। দূর্দান্ত কিছু সেভ করলেও বাজে বাজে গোল হজমের জন্য দুর্নাম তার। কিন্তু কাল তিনি  হয়ে গেছেন ম্যাচ সেরা। তা ভারতীয়দের কয়েকটি গোল রুখে দিয়ে। তিন বছরের ক্যারিয়ারে এই প্রথম ম্যাচ সেরা হলেন তিনি। ম্যাচ শেষে তাই তার অভিব্যাক্তি, ‘আমি ভুল থেকেই শিক্ষা নিয়েছি। আসলে ভুল করলেই শোধরানো সুযোগ থাকে। এই প্রথম সেরা খেলোয়াড় হলাম। এটা আমাকে আগামীতে এবং বিশেষ করে মঙ্গলবার ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে ভালো করতে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেবে। যেখানে জিতে চ্যাম্পিয়ন হতে চাই।’

রোববার প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে অভিষেক স্বপ্না রানী। অভিষিক্ত ম্যাচে তিনি শুধু ভালোই খেলেন নি, গোলও করেছেন ভারতের বিপক্ষে। তাকে আটকাতে বেগ পেতে হচ্ছিল ভারতীয় ডিফেন্ডারদের। বলের উপর তার নিয়ন্ত্রন যেমন চমৎকার তেমনি স্কিল আর ডজে বিপক্ষ ডিফেন্স লাইন ভাঙতে দক্ষ তিনি। কৃষক বাবার তিন বোন এক ভাইয়ের একজন এই ঠাকুরগাঁওয়ের মেয়ে। এবারের জেএফএ কাপ থেকে তাকে বাছাই করা হয়। কদিন আগে ভারতের সুব্রত কাপে চ্যাম্পিয়ন বিকেএসপি দলের নিয়মিত খেলোয়াড় তিনি। সুব্রত কাপে তার পাঁচ গোল। খেলা শেষে জানান,এই গোলগুলোর মধ্যে আমি  তামিলনাড়– এবং মধ্যপ্রদেশের বিপক্ষে দুটি করে এবং একটি করি মনিপুরের বিপক্ষে।’ যোগ করেন, ‘আমাকে যখন বলা হলো  ভারতের বিপক্ষে খেলার যখন সুযোগ পাচ্ছ তখন তোমাকে গোল করতে হবে। এতে একটু চাপে ছিলাম। তবে আমি সেই গোল ঠিকই করেছি। এখন লক্ষ্য সামনের দিকে।’ তার পারফরম্যান্মে মুগ্ধ কোচ ছোটন এবং টেকনিক্যাল ও স্ট্র্যাটিজিক্যাল ডিরেক্টর পল স্মলি। পলের মতে, ওহ স্বপ্না ,অপ্রত্যাশিত রকম ভালো খেলেছে সে।


আরো সংবাদ