১৬ জুলাই ২০১৯

ত্বকে লেজার চিকিৎসা : কিভাবে হয়

ত্বকে লেজার চিকিৎসা - ছবি : সংগ্রহ

অবাঞ্ছিত লোম ও চুল অপসারণে লেজার
আমাদের দেশের শ্যামলা রঙের ত্বকের জন্য নির্মিত ফ্লুক্স এক হাজার ডাইওড মেশিন বাংলাদেশেও রয়েছে। ত্বকের কোনো ক্ষতি না করেই ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে অবাঞ্ছিত লোম ও চুলকে অঙ্কুরে ধ্বংস করে। অন্য দিকে আধুনিক কুলিং ব্যবস্থা চিকিৎসাকে নিরাপদ ও আরামদায়ক করে। কিউ-সুইচড এনডি ইয়াগ নামক লেজার দু’টি ভিন্ন ধরনের মিশ্রিত রশ্মির সৃষ্টি করে ত্বকের গভীরে অবাঞ্ছিত চুলের ওপর কাজ করে। বাংলাদেশে ইনটেন্স পালস লাইট নামক অত্যাধুনিক লেজার মেশিন রয়েছে, যা একই নিয়মে কাজ করে কিন্তু সময় অনেক কম লাগে। কারণ এর চিকিৎসা স্পট সাইজ অনেক বড়। এ ক্ষেত্রে চার সপ্তাহ পরপর চারটি সিটিংয়ের প্রয়োজন হয়। সব পদ্ধতিই ব্যথামুক্ত ও রক্তপাতবিহীন। চুল অপসারণে এটি একটি বিস্ময়কর আবিষ্কার ও শতভাগ কার্যকর চিকিৎসা পদ্ধতি।

ব্রণ নির্মূলে লেজার রশ্মির ব্যবহার
গত ১০ বছর ধরে ব্রণ চিকিৎসায় ফোটন রশ্মি বিশ্বব্যাপী সফলভাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। যে ব্যাকটেরিয়া ব্রণের জন্য দায়ী তা এ রশ্মি শোষণ করে জীবাণুকে ধ্বংস করে। তাই এ ক্ষেত্রে অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ার প্রয়োজন কমে যায়। এ চিকিৎসার সময়কাল ছয় থেকে আট সপ্তাহ এবং সপ্তাহে এক থেকে দুইবার করতে হয়। এটি খুব সহজ ও ব্যথামুক্ত একটি পদ্ধতি। তবে রোগীকে ধৈর্যসহকারে চিকিৎসকের পরামর্শে চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।

মুখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও ত্বকের দাগের চিকিৎসায় লেজার
কিউ সুইচড এনডি ইয়াগ দু’টি তরঙ্গ দৈর্ঘ্যে কাজ করে এর সমাধান দেয়। ত্বকের কালো ও জন্মদাগ এবং মুখের ত্বকের উপরি ভাগের লোম ও রক্তনালীর সমস্যায় এ চিকিৎসা খুবই ফলপ্রসূ।

ত্বকের টিউমার অপসারণে লেজার
কার্বন ডাই-অক্সাইডযুক্ত লেজার ত্বকের টিউমার ও ক্যান্সার, আঁচিল ও বয়সের ভাঁজের চিকিৎসায় অত্যন্ত কার্যকর পদ্ধতি। সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এতে অ্যানস্থেসিয়ার প্রয়োজন হয় না। ব্যথামুক্ত এ পদ্ধতিতে এক থেকে দুই বার চিকিৎসার প্রয়োজন হয়।

ত্বকের ঘা ও অপারেশন-পরবর্তী ঘা শুকানোর জন্য লেজার
ইনকোহারেন্ট ফোটন রশ্মির সাহায্যে উন্নত চিকিৎসাব্যবস্থা ডায়াবেটিস, আলসার, ত্বকের প্রদাহ ও অপারেশন-পরবর্তী ঘা শুকানোর জন্য লেসার ব্যবহৃত হয়।

লেখক : চর্ম, অ্যালার্জি ও যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ
চেম্বার : আলরাজী হাসপাতাল, ১২ ফার্মগেট, ঢাকা।
ফোন : ০১৮১৯২১৮৩৭৮


আরো সংবাদ

এ মুহূর্তে বন্যায় কৃষিতে ক্ষতি কম হবে : কৃষিমন্ত্রী এ বছরই ঢাবি থেকে সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবি বন্যায় ৭ শিশুর মৃত্যু মিয়ানমারকে অবশ্যই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ‘৬ না ৫ রান’ নিয়ে তুমুল বিতর্ক বিশ্বকাপ শিরোপা বঞ্চিত করা হয়েছে নিউজিল্যান্ডকে! বিচারকের খাস কামরায় আসামিকে কুপিয়ে হত্যা সাত দিনে ডিএসইর মূলধনের ১৯ হাজার কোটি টাকা হাওয়া আস্থাহীন পুঁজিবাজারে এবার বিপর্যয়ের আতঙ্ক উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ নিহত ৯ অন্যান্য স্থানে নিহত আরো ৯ খালেদা জিয়ার মুক্তি ও পুনর্নির্বাচন দাবি নিয়ে মাঠে নামছে বিএনপি অস্তিত্বসঙ্কটে দেশীয় ডেবিট-ক্রেডিট কার্ড উৎপাদকেরা আমদানি কার্ডে শুল্ক প্রত্যাহার, শত কোটি টাকার রাজস্ব হারানোর শঙ্কা ডাম্পিং স্টেশনে মিলল নারীর ৬ টুকরো লাশ

সকল