২১ অক্টোবর ২০১৯

মনের ভুলে খাওয়া শরীরের ওজন বাড়ায়

-

অনেক সময় দেখা যায়, টিভি দেখছেন, সামনে ফিরনি-পায়েসের বাটি, কচুরি, মিষ্টি ভর্তি প্লেট, খাচ্ছেন, খাওয়ার পর আঙুলও চুষছেন।
মনের ভুলে এরকম খাওয়া পালিয়ে খাওয়াÑ এসব করলে শরীরের ওজন কমবে কী করে?
ডায়েটিং করছেন, পুষ্টি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে বিধিমতো খাচ্ছেন, কিন্তু ফ্রিজের দরজা খুলে, হাতের আঙুল ডুবিয়ে নিলেন খাবার বাটিতে, এরপর আঙুল চুষে উপভোগ করলেন সে ঘন খাদ্য। মন ভুলে এ রকম আহার বড় শত্রু দেহের। আপনি ভাবলেন বেশ ভেবেচিন্তেই খাওয়া দাওয়া করেন। কড়া নিয়ম।
নতুন গবেষণা বলে 'ঋধঃরহম ধসহবংরধ' বা আত্মবিস্মৃত হয়ে টুকটাক খাওয়া, চেটেপুটে খাওয়া, এরকম হলে সব চেষ্টাই মাটি হয়ে যায়।
পালিয়ে পালিয়ে এরকম খাওয়া, একটু চেখে দেখা। ভালো নয় স্বাস্থ্যের জন্য, বিশেষ করে শরীরের বাড়তি ওজন কমাতে চাচ্ছেন, তাদের জন্য। সিনেমার হলে বসে মনের ভুলে বাদাম ভাজা, চানাচুর, তেলে ভাজা খাওয়া। রান্নাঘরে নারিকেলের সন্দেশ বানাবার সময় নারিকেল গুঁড়ো খাওয়া, ক্ষীরসা বানাবার সময় ময়ান মুখে দেয়াÑ এসব হচ্ছে আত্মভোলা খাওয়া চুরি। এভাবে মনের অজান্তে প্রচুর ক্যালোরি শরীরে ঢোকে, এতে ওজন বাড়ে শরীরের দ্রুত।
মন লাগিয়ে না খেলে অনেক সময় খাওয়া বেশি হয়ে যায়।
দেখা গেছে, এ ব্যাপারটি একদল মহিলার জন্য। যেমন মহিলা যারা কী খাচ্ছেন তা বেশ খেয়াল করেন, মধ্যাহ্ন ভোজন করলেন ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতিতে। যে দল মহিলা গোয়েন্দা কাহিনী শুনতে শুনতে মধ্যাহ্নে আহার করলেন, এরা, আর একদল মহিলা যারা মনোযোগ দিয়ে খেলেন, এদের তুলনায়, আহার করলেন ১৫% বেশি (৭২ বাড়তি ক্যালোরি) (সূত্র : আমেরিকান জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশন আগস্ট ২০০১)। সমাধান কী? মন যখন অন্যখানে (যেমন কম্পিউটারে মন বসেছে) তখন খাওয়া পরিহার করুন এবং মনোযোগ নষ্ট হয় এমন কাজে করবেন না (রেডিও চললে সুইচ অফ করে দিন, বই পড়তে থাকলে বন্ধ করে পাশে রেখে দিন)। আরো আছেÑ
অফিসে : ধরুন, সহকর্মী অফিসে নিয়ে এলেন স্বাদু সন্দেশ, মালপোয়া, পায়েস, মিষ্টান্ন সকালের সভার জন্য। একটি পিঠা তুলে নিলেন, আর নয়। সভার পর ডেসকে ফিরে গিয়ে আরেকটি খাবেন, সেজন্য রেখে দিন। সভায় বসে পিঠাগুলো শেষ করার প্রয়োজন নেই।
নিশি আহার তৈরির সময় : চুয়িংগাম চুষে খান। রাতের খাবার তৈরির সময় অনেকে টেস্ট করে দেখেন। সুতরাং যতবার টেস্ট করবেন, চুয়িংগাম। মুখ থেকে বের করতে হবে। তাই নিজেও বুঝতে পারবেন কি রাঁধছেন। মন ভুলো হওয়া আর চলবে না।
শিশুদের প্লেট চেটেপুটে খাওয়া : শিশুদের প্লেটে পরিবেশনের সময় একগাদা খাবার দেবেন না। কারণ দ্বিতীয়বার পরিবেশনের সুযোগ আছে, তাই সব ভাত, মাছ, গোশত একসাথে বাড়তে হবে কেন? তারা খাওয়া শেষ করলেই প্লেট পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলা ভালো।
টিভি দেখার সময় : সে সময় উলবুনে সোয়েটার তৈরি করুন, নখ ফাইল করুন, নয়তো গেম খেলুন। খাবার বাটি সামনে নিয়ে বসবেন না।


আরো সংবাদ