১৯ অক্টোবর ২০১৯

দুনিয়া কাঁপানো উইকিলিকসের সম্পাদক পদে পরিবর্তন

দুনিয়া কাঁপানো উইকিলিকসের সম্পাদক পদে পরিবর্তন - সংগৃহীত

দুনিয়া কাঁপানো ওয়েবসাইট উইকিলিকসের সম্পাদকের (এডিটর-ইন-চিফ) পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ।

আইসল্যান্ডের সাংবাদিক ক্রিস্টিন হ্রাফনসন তাঁর স্থলাভিষিক্ত হবেন বলে জানা গেছে। তবে ওয়েবসাইটটির প্রকাশক হিসেবে থাকবেন অ্যাসাঞ্জ।

 উইকিলিকস এক বিবৃতিতে বলেছে, ইন্টারনেট অ্যাকসেস বন্ধ হওয়ার পর সারাবিশ্ব থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন অ্যাসাঞ্জ। যুক্তরাজ্যের পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারে-এই ভয়ে গত ছয় বছর ধরে ইকুয়েডরের দূতাবাসে লুকিয়ে আছেন অ্যাসাঞ্জ। 

এদিকে হ্রাফনসন বলেন, আমি উইকিলিকসের আদর্শের ভিত্তিতে এর গুরুত্বপূর্ণ কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার যে সুযোগ পেয়েছি, তাকে স্বাগত জানাই।

উইকিলিকস একটি আন্তর্জাতিক অলাভজনক প্রচার মাধ্যম সংস্থা যা দুষ্প্রাপ্য দলিল অপ্রকাশিত সূত্র ও মাধ্যম থেকে প্রকাশ করে। ২০০৬ সালে এটির ওয়েবসাইট দ্য সানশাইন প্রেস কর্তৃক তৈরী হয়ে অদ্যাবধি পরিচালিত হচ্ছে। পরিচালনার এক বৎসরের মধ্যেই সাইটটি দাবী করে যে তাদের ডাটাবেজে ১.২ মিলিয়নেরও বেশি ডকুমেন্টস বা দলিল রক্ষিত আছে এবং প্রতিদিনই তা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

প্রতিষ্ঠানটি দাবী করছে যে, চীনা ভিন্নামতাবলম্বী বিশেষ করে সাংবাদিক, গণিতবিদ এবং প্রযুক্তিবিদ হিসেবে যারা যুক্তরাষ্ট্র, তাইওয়ান, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিভিন্ন সংস্থা ও সরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন তারাই মূলতঃ উইকিলিকস্ সমৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছেন।

উইকিলিকসের সম্পর্কীয পাতায় বলা আছে: উইকিলিকস দেখতে উইকিপিডিয়ার মতো ব্যবহারকারীদের জন্য। যে কেউই এতে পোস্ট করতে পারে, সম্পাদনা করতে পারে। এর জন্য কারীগরী জ্ঞানের প্রয়োজন নেই। তথ্যদাতা যে কোন স্থান থেকেই স্বচ্ছন্দে পোস্ট করতে পারেন। ব্যবহারকারী স্বাধীনভাবে তথ্য এবং তথ্যের উতস সম্পর্কে আলোচনা করতে পারেন। তথ্য দাতা ফাঁসকৃত তথ্যের উৎস সম্পর্কে ব্যাখ্যামূলক প্রতিবেদন পড়তে এবং লিখতে পারেন। রাজনৈতিক তথ্য প্রদানে ব্যবহারকারীদের উৎসাহিত করা হচ্ছে।

 


আরো সংবাদ