১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নারীঘটিত কেলেঙ্কারির জের : অধ্যক্ষের উপর হামলায় ছাত্রলীগ সভাপতি আটক

-

সাতক্ষীরার আশাশুনি সরকারি কলেজ অধ্যক্ষকে তিন দফা মারধর ও লাঞ্ছিত করে তার অফিস কক্ষ ভাংচুরের ঘটনায় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতিসহ দুই ছাত্রকে আটক করেছে আশাশুনি থানা পুলিশ। আটক কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর আহমেদ তাজ (২১) আশাশুনি সদরের বদিউজ্জামান মন্টুর পুত্র ও তার সহযোগী সুধো’র পুত্র মামুন (২০)।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যায় কলেজ অধ্যক্ষ তার কয়েকজন সহকর্মীকে সাথে নিয়ে নিজ কক্ষে অফিসিয়াল কাজ করছিলেন। এ সময় এক যুবক এসে তাকে সালাম দিয়ে একটু রুমের বাইরে আসতে বলে। তিনি বলেন বাইরে আসার পরপরই তার সামনে আরেকটি ছেলেকে তারা মারধর করতে থাকে। তিনি বিষয়টি কী তা জানতে চাইলে তারা জানায় সে সাতক্ষীরা থেকে একটি মেয়েকে এনে কলেজ ক্যাম্পাসের মধ্যে ঢুকে অনৈতিক আচরণ করেছে। অধ্যক্ষ ছেলেটিকে মারধর না করে তার কাছে দিতে বলেন। এ সময় তিনি তার অভিভাবকদের ফোন করে ডেকে আনেন। একই সময়ে সেখানে পুলিশও পৌছায় । পরে পুলিশ থানায় এনে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয় অজ্ঞাত পরিচয় ছেলেটিকে।

ছেলেটিকে তাদের হাতে কেনো দেয়া হলো না এই কৈফিয়ত তলব করে তার ওপর হামলা করে কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি তাজ ও তার সহযোগী শাওন, আল মামুন ও সাইফুল্লাহসহ ৭/৮ জন ছাত্রলীগ ক্যাডার। এ সময় তারা ভাংচুর করে অধক্ষ্যের কক্ষ, জানালার গ্লাস, চেয়ার টেবিল। ইটপাটকেল ছোড়ে তারা। পরপর তিনবার তিনি এই হামলার শিকার হন। এঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান আশাশুনি থানায় ৯ সেপ্টম্বর ২০১৯ তারিখ সন্ধ্যায় একটি মামলা দায়ের করেন যার নং- ১০।

উক্ত মামলায় ওই রাতেই কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর আহমেদ তাজ ও তার সহযোগী মামুনকে আটক করে পুলিশ।

আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুস সালাম জানান, অধ্যক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনায়স্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পাই। পরে কলেজ অধ্যক্ষ মামলা দায়ের করেন। মামলায় ইতোমধ্যে ২জনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে।


আরো সংবাদ