১৭ অক্টোবর ২০১৯

কলারোয়ায় চাঁদাবাজির অভিযোগে আওয়ামী লীগ নেত্রীসহ ২ জন গ্রেফতার

সেলিনা আনারুল ময়না - ছবি : সংগৃহীত

চাঁদার জন্য এক মৎস্যজীবীকে পিটিয়ে পা ভেঙে দেয়ার ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেত্রী সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা আনারুল ময়না ও নিত্যজিৎ বিশ্বাস নামের দু’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার কলারোয়া উপজেলার পাকুড়িয়া গ্রামের বিপ্রতী বিশ্বাস বাদি হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা তিনজনের নাম উল্লেখ করে এ মামলা দায়ের করেন। সোমবার সন্ধ্যায় থানার সামনে থেকে উল্লেখিত দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, চলতি বছরের ১৩ মে তারা খোদ্দ বাঁওড়ের একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে ১০০ জন সংখ্যালঘু জেলে সম্প্রদায়ের লোকসহ ১১৪ জন মাছ চাষের প্রস্তুতি নেন। আট লাখ টাকার মাছের পোনাসহ প্রায় ১৪ লাখ টাকা খরচ করেন ওই বাঁওড়ে। স্থানীয় ইউনিয়ন অওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান গাজী, আ.লীগের উপজেলার নেত্রী মোসা: সেলিনা আনোয়ার ময়না, আমিনুর গাজী, হাসান সরদারসহ একটি মহল বাঁওড়ে মাছ চাষ করতে হলে তাদেরকে পাঁচ লাখ টাকা দিতে হবে বলে দাবি করে। টাকা না দিলে তারা মাছ চাষ করতে দেবে না বলে জানায়। এমনকি বাঁওড় দখল করবে বলেও তাদেরকে হুমকি দেয়।

এরই জের ধরে সমিতির সদস্য শচীন বিশ্বাসকে গত ১১ সেপ্টেম্বর বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে পাকুড়িয়া গ্রামের ব্র্যাক অফিসের সামনে মাসুমের চায়ের দোকানে বসে থাকাকালীন দাবিকৃত পাঁচ লাখ টাকা না দেয়ায় মান্নান, জয়, রিপন, কুদ্দুস, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী ও সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ময়না খাতুন, নিত্যজিৎ বিশ্বাসসহ কয়েকজন লোহার রড দিয়ে শচীনের ডান পা ভেঙে গুড়িয়ে দেয়। দু’হাত, পিট ও কোমর পিটিয়ে জখম করে। পরে তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মনির উল গিয়াস বলেন, রোববার মামলা রেকর্ড করার পরপরই ময়না ও নিত্যজিতকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।


আরো সংবাদ