১৩ নভেম্বর ২০১৯

ঝুঁকিতে বেড়িবাঁধ, আতঙ্কে উপকূলবাসী

১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে উপকূলীয় নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দেখা দিয়েছে আতঙ্ক। সেই সাথে উপকূলের তিন জেলা খুলনা, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরায় প্রায় ৫০০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ঝুঁকিতে পড়েছে। বাঁধ ভাঙ্গার আতঙ্কে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন উপকুলবাসী।

এদিকে জেলা প্রশাসন,উপজেলা প্রশাসন ও সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে দুর্যোগ মোকাবেলায় খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকা খুলনার কয়রা-দাকোপ, সাতক্ষীরার শ্যামনগর-আশাশুনি ও বাগেরহাটের বিভিন্ন এলাকার বেড়িবাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ। সিডর-আইলাসহ বিভিন্ন দুর্যোগে পড়া এসব এলাকার সাধারণ মানুষ ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন আতঙ্কে।

খুলনার কয়রা উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়ার্ড ইউপি সদস্য বেলাল হোসেন বলেন, কয়রার বেড়িবাঁধের বেশ কিছু এলাকা ঝুঁকিপূর্ণ। পানির চাপ বাড়ায় যে কোনো সময় বাঁধ ভেঙে গ্রাম তলিয়ে সিডর-আইলার মতো ক্ষতি হতে পারে।

কয়রা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ উদ্দিন বলেন, আতঙ্কের নাম বেড়িবাঁধ, শঙ্কার নাম বেড়িবাঁধ, দুঃখের নাম বেড়িবাঁধ, নির্ঘুম রাতের নামও এই বেড়িবাঁধ। সংকেত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আতঙ্কও বাড়ছে।

এদিকে বুলবুলের প্রভাবে শনিবার সকাল থেকে দমকা বাতাস আর বৃষ্টির তীব্রতা বেড়েছে। উপকূলজুড়ে সিডরের পূর্ব মুহুর্তের পরিস্থিতি বিরাজ করছে বলে জানান স্থানীয়রা। উপজেলা প্রশাসন ও সিপিপির স্বেচ্ছাসেবকরা মাইকিং করে সতর্কতামূলক প্রচারণায় নেমেছে।

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় নিরাপদ স্থানে চলে যাওয়ার জন্য মাইকিং করায় ঘরবাড়ি ছেড়ে বিভিন্ন সাইক্লোন শেল্টারে আশ্রয় নিয়েছেন বেশীরভাগ লোক। মসজিগুলোর মাইক থেকে সতর্কীকরণ বার্তা প্রচার করা হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিংসহ সব সাইক্লোন শেল্টার ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সার্বক্ষণিক খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এবং উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

মোংলা সমুদ্র্রবন্দরে জারি করা হয়েছে বিশেষ সতর্কতা। একইসঙ্গে খোলা হয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষের কেন্দ্রীয় একটিসহ দুইটি সাব কন্ট্রোল রুম। উপকূলীয় জনপদে ত্রাণ ও উদ্ধার তৎপরতার জন্য খুলনা নৌঘাঁটি তিতুমীরে পাঁচটি জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) খুলনার উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমান বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। বেড়িবাঁধের ঝুঁকিপূর্ণ স্থান জরুরি মেরামত করে মোটামুটি একটি পর্যায় নিয়ে এসেছি। আশা করি, কোনও সমস্যা হবে না। সেখান থেকে প্রতিনিয়ত জোয়ারের পানি কতদূর পর্যন্ত আসছে তা রেকর্ডিং করা হচ্ছে। আমাদের সবাই মাঠপর্যায়ে রয়েছি।


আরো সংবাদ

ডাক্তার থাকলেও খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হচ্ছে না, অভিযোগ পরিবারের মিসরের হয়ে খেলা হচ্ছে না সালাহ’র বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে বিতর্কিত ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ নয় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এডিএন টেলিকমের শেয়ারের কাট-অব-প্রাইস ৩০ টাকা নির্ধারিত নিজ জেলায় হুমায়ুন আহমেদের জন্মবার্ষিকীতে হিমুদের মিলনমেলা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় আহতদের সার্বিক সহযোগিতায় জামায়াত-শিবির শ্রীনগরে পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই কিস্তির টাকা দিতে না পেরে হতাশ, স্ত্রীকে হত্যা বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির নির্মাণ : শরীয়তপুরে বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ গাজায় ইসরাইলি হামলায় নিহত ২২ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ট্রেন দুর্ঘটনায় আহতদের জামায়াতের আর্থিক সহায়তা

সকল