১২ ডিসেম্বর ২০১৯

চতুর্থ দিনের মতো খুলনায় বাস চলেনি

ট্রেনেও হুড়োহুড়ি
-

খুলনায় চতুর্থ দিনের মতো বাস চলাচল বন্ধ রেখে কর্মবিরতি পালন করেছে বাসচালক ও পরিবহন শ্রমিকরা। আজ বৃহস্পতিবার নগরীর সোনাডাঙ্গা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, রয়্যাল ও শিববাড়ির মোড় এলাকা থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। অধিকাংশ বাস কাউন্টার বন্ধ ছিল। এছাড়া অভ্যন্তরীণ রুটেও বাস চলাচল করেনি। নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে গত সোমবার থেকে পরিবহন ধর্মঘট শুরু করেছে বাস চালক ও শ্রমিকরা।

এদিকে, টানা চার দিনের পরিবহন ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। বাস চলাচল বন্ধ থাকায় ট্রেনের ওপর প্রচণ্ড চাপ বেড়েছে। যাত্রীর সংখ্যাও বিপুল পরিমাণে বেড়ে গেছে। তবে সিট না পেয়ে অনেকে দাঁড়িয়ে যাচ্ছেন ট্রেনে।

শুক্রবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা রয়েছে। বাস চলাচল না করায় আগেভাগে অনেকেই ট্রেনে করে যশোর চলে গেছেন। বৃহস্পতিবার সকালে খুলনা রেলস্টেশনে বিপুলসংখ্যক ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট নিতে দেখা যায়। অনেকে টিকিট নিতে না পেরে ট্রেনে উঠে পড়েন। তাদের বক্তব্য, টিটি আসলে তার কাছ থেকেই টাকা দিয়ে বিকল্প টিকিট নিয়ে নেবেন তারা।

ঢাকা থেকে মালিহা রহমান তাসনিয়া নামের এক ছাত্রী বলেন, আজ আমার প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা ছিল। খুলনা রেলস্টেশন থেকে অনেক কষ্টে টিকিট কাটলেও বসার সিট পাইনি। অনেকে টিকিট ছাড়াই ট্রেনে উঠেছে। টিটির কাছ থেকে টিকিট নিবে বলে।

খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সহকারী সম্পাদক জিয়াউর রহমান মিঠু বলেন, খুলনায় এখনো বাস চলাচল শুরু হয়নি। বুধবার রাতে মালিক ও শ্রমিক নেতারা ঢাকায় গেছেন। মন্ত্রণালয়ে ট্রাক মালিক-শ্রমিকদের সাথে সভা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বৈঠক থেকে সিদ্ধান্ত হবে।

খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো: জাকির হোসেন বিপ্লব বলেন, খুলনায় এখনো বাস চলাচল শুরু হয়নি। বুধবার রাতে মালিক ও শ্রমিক নেতারা ঢাকায় গেছেন। মন্ত্রণালয়ে ট্রাক মালিক শ্রমিকদের সাথে সভা হয়েছে। সেখান থেকে কোনো সিদ্ধান্ত আমাদের জানানো হয়নি। তবে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মোটর শ্রমিক নেতা বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর হয়তো খুলনা থেকে বাস চলাচল শুরু হতে পারে।


আরো সংবাদ