২৩ আগস্ট ২০১৯

অপেক্ষা বাড়ল বসুন্ধরার রেসে আবাহনী শেখ রাসেল ১:০ বসুন্ধরা, ঢাকা আবাহনী ৪:১ সাইফ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ

-

শেখ রাসেলের বিপক্ষে জিতলেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেত বসুন্ধরা কিংস। এমনকি সাইফ স্পোর্টিংয়ের কাছে আবাহনীর হারও তাদের প্রথম শিরোপা জয়ের উৎসবের উপলক্ষ তৈরি করত। কিন্তু কাল চ্যাম্পিয়নশিপ নিশ্চিত করা হলো না বসুন্ধরা কিংসের। সিলেটের মাঠে বসুন্ধরা ০-১ গোলে হেরে বসে শেখ রাসেলের কাছে। লিগে এটি তাদের প্রথম হার। আর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে পিছিয়ে থেকেও সাইফ স্পোর্টিংয়ের বিপক্ষে ৪-১ গোল জয় তুলে নেয় ঢাকা আবাহনী। এই জয়ের ফলে আবাহনীরও আশা জেগেছে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। এখন বসুন্ধরা যদি তাদের পরের তিন ম্যাচে হেরে যায় এবং আবাহনী পরের দুই ম্যাচে জিতে যায় তা হলে শিরোপা ধরে রাখা নিশ্চিত হবে আকাশি-নীল শিবিরের। ২১ ম্যাচ শেষে বসুন্ধরার পয়েন্ট ৫৮। আবাহনীর ২২ খেলায় ৫৪। জয়ের ফলে শেখ রাসেলের পয়েন্ট ২১ খেলায় ৪৫। সাইফের ২১ খেলায় ৪১।
কাল সিলেট স্টেডিয়ামে ৫২ মিনিটে উজবেকিস্তানের আজিজভ আলিশেরের গোলে এগিয়ে যায় শেখ রাসেল। কাউন্টার অ্যাটাক থেকে গোলটি করেন আজিজভ। আর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ৩৭ মিনিটে কলম্বিয়ান দেইনার কর্ডোবার ডান পায়ের ভলিতে লিড সাইফ স্পোর্টিংয়ের। ৫১ মিনিটে আবাহনী খেলায় ফেরে পেনাল্টি থেকে। জীবনকে বক্সে অযথাই ফাউল করেন সাইফের গোলরক্ষক সাইফুল। রেফারি আনিসুর রহমান সাগরের দেয়া পেনাল্টিতে সমতা আনেন নাইজেরিয়ান সানডে। জুয়েল রানাকে ফাউল থেকে দ্বিতীয় পেনাল্টি পায় আবাহনী। জীবনের শটে আবাহনীর এগিয়ে যাওয়া। এই পেনাল্টিকে কেন্দ্র করে মারামারিতে লিপ্ত হয়ে লাল কার্ড পান সাইফের রুয়ান্ডার খেলোয়াড় এমিরি এবং আবাহনীর আফগান ফুটবলার মাসি সাইঘানি। ৬৫ মিনিটে সাইফকে ম্যাচ থেকে ছিটকে ফেলেন সানডে ডান পায়ের ভলিতে গোল করে। ৮০ মিনিটে মামুনুলের কর্নার কিক সরাসরি জালে যায় পোস্টে লেগে। সরাসরি কর্নার কিকের গোলকে বলে অলিম্পিক গোল। আগের ম্যাচে মোহামেডানের কাছে চার গোলে হারের পর দারুণভাবে কাম ব্যাক আবাহনীর।
খেলা শেষে রেফারির দিকে তেড়ে যাওয়ায় সাইফের অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়াকে রেফারি লালকার্ড দেখান।

 


আরো সংবাদ