২৪ অক্টোবর ২০১৯

নেদারল্যান্ডসে গরমে ৩ হাজার মানুষের মৃত্যু

-

বিশ্ব উষ্ণায়নের নজিরবিহীন অভিজ্ঞতা এ বছরের জুলাইয়ে পেয়েছে বিশ্ববাসী। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে যায় এ মাসে। গোটা বিশ্ব উত্তপ্ত ছিল এই সময়টিতে। এমনকি এখনো উত্তপ্ত। বিশেষ করে ইউরোপে এর প্রভাব পড়েছে ব্যাপক। একেতো তাদের গরমের সহনশীলতা কম, তারপর আবার উচ্চ তাপমাত্রা। প্রচণ্ড রকমের এই গরমে শুধু ইউরোপের দেশ নেদারল্যান্ডসেই মারা গেছেন এ পর্যন্ত প্রায় তিন হাজার মানুষ। বাংলা নিউজ।
গতকার শুক্রবার ডাচ জাতীয় পরিসংখ্যান সংস্থা সিবিএস জানিয়েছে, ইউরোপজুড়ে সাম্প্রতিক সময়ের রেকর্ড গড়া তাপমাত্রায় নেদারল্যান্ডসে ২২ জুলাই থেকে শুরু হয়ে এ পর্যন্ত দুই হাজার ৯৬৪ জন মানুষ মারা গেছেন। এর মধ্যে চলতি সপ্তাহেই মারা গেছেন ৪০০-এর বেশি মানুষ। যেখানে দেশটির মোট জনসংখ্যাই প্রায় ১৭ মিলিয়ন।
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, জুলাইয়ের শেষের দিকে ইউরোপজুড়ে সর্বোচ্চ তাপমাত্রায় অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে গিয়েছিল। একইসাথে ২৫ জুলাই দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো রেকর্ড গড়ে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস (১০৪ ফারেনহাইট) তাপমাত্রা উঠেছিল নেদারল্যান্ডসে।
গবেষকেরা জানিয়েছেন, মৃত সংখ্যা হিসাবে নেদারল্যান্ডসে এবারের ২২ জুলাইয়ের পরের সময়টিকে ২০০৬ সালের বিরল একটা গ্রীষ্মকালীন সময়ের সাথে তুলনা করা যায়। এবারের আগে সে সময়টিতে নেদারল্যান্ডসে সবেচেয়ে বেশি মানুষ মারা গিয়েছিল গরমে।
গবেষণা বলছে, এই জুলাইয়ে নেদারল্যান্ডসে ৩০০ জন মানুষ অতিরিক্ত মারা গেছেন, যাদের বয়স ছিল ৮০ বা এরও বেশি। গরমে বেশির ভাগ মৃত্যুর ঘটনা নেদারল্যান্ডসের পূর্বাঞ্চলে ঘটেছে। সেখানে তুলনামূলক তাপমাত্রা বেশি ছিল। একইসাথে দাবদাহ দেশের অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় এখানে দীর্ঘস্থায়ী ছিল।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ইউরোপে দ্বিতীয়বারের মতো আঘাত হেনেছে এমন উচ্চ তাপমাত্রা। সতর্ক করে তারা দাবি করেছেন, গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণের কারণে অঞ্চলটি দিনদিন উষ্ণ হয়ে উঠছে। এ রকম তাপের আঘাত আরো বারবার হতে পারে।

 


আরো সংবাদ