১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শুভ জন্মাষ্টমী আজ

-

শুভ জন্মাষ্টমী আজ। সনাতন ধর্মের প্রবক্তা ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মতিথি। দ্বাপর যুগের শেষ দিকে এই মহাপুণ্য তিথিতে মথুরা নগরীতে অত্যাচারী রাজা কংসের কারাগারে বন্দী দেবকী ও বাসুদেবের বেদনাহত ক্রোড়ে জন্ম নিয়েছিলেন শ্রীকৃষ্ণ। সনাতন ধর্মানুসারে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণ অত্যাচারীর বিরুদ্ধে দুর্বলের অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং দুষ্টের দমন ও শিষ্টের পালন করতেই এ পৃথিবীতে আবির্ভূত হয়েছিলেন। হিন্দু ধর্মালম্বীদের অন্যতম ধর্মীয়গ্রন্থ শ্রীমদ্ভাগবতগীতার উদগাতা শ্রীকৃষ্ণ দ্বাপর যুগের বিশৃঙ্খল ও অবক্ষয়িত মূল্যবোধের সময়ে পৃথিবীতে মানবপ্রেমের অমিত বাণী প্রচার ও প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। পরমাত্মার সাথে জীবাত্মার মিলনই সেই বাণীর মূল বিষয়। তাই তিনি ভক্ত ও বিশ্বাসীদের কাছে প্রেমাবতার।
ধর্মানুসারে, ঈশ্বরতত্ত্বের মহান প্রতীক হলেন শ্রীকৃষ্ণ। বেদে তিনি ঋষিকৃষ্ণ, দেবতাকৃষ্ণ। মহাভারতে রাজর্ষিকৃষ্ণ, শাসক ও প্রজাপালক কৃষ্ণ, অত্যাচারী দমনে যোদ্ধাকৃষ্ণ। ইতিহাসে যাদবকৃষ্ণ, দর্শনশাস্ত্রে সচ্চিদানন্দ বিগ্রহ কৃষ্ণ। শ্রীমদ্ভাগবতগীতায় অবতারকৃষ্ণ, দার্শনিক কৃষ্ণ, পুরুষোত্তম কৃষ্ণ ও ঈশ্বরায়িত কৃষ্ণ।
দেশব্যাপী ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় আড়ম্বর-আনুষ্ঠানিকতায় আজ শুক্রবার উদযাপন করা হচ্ছে শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মতিথি। জন্মাষ্টমী উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।
এ উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী হিন্দু সম্প্রদায়কে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি দেশের সব নাগরিকের সুখ, শান্তি ও কল্যাণ কামনা করেন। রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বঙ্গভবনে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।
শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে আজ জাতীয় সংবাদপত্রসমূহে বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশিত হবে এবং বেতার-টেলিভিশনে প্রচার করা হবে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা। বিকেল ৩টায় ঢাকার ঐতিহাসিক ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির থেকে বের করা হবে বর্ণাঢ্য জন্মাষ্টমী শোভাযাত্রা। লালবাগের ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির থেকে শুরু হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার-দোয়েল চত্বর, হাইকোর্ট বটতলা, সরকারি কর্মচারী হাসপাতালের ফিনিক্স রোড, (পুলিশ সদর দফতরের সামনে) -গোলাপ শাহ মাজার, নবাবপুর রোড ও রায় সাহেব বাজার মোড় থেকে বাহাদুর শাহ পার্কে গিয়ে শেষ হবে। এর আগে সকাল ৮ টায় দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় ঢাকেশ্বরী মন্দিরে গীতাযজ্ঞ শুরু হবে এই শোভাযাত্রা।
এ দিকে জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠান ঘিরে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) রাজধানীতে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়েছে। শোভাযাত্রা চলাকালে অর্থাৎ যানজট এড়াতে শুক্রবার (বিকেলা ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৫টা পর্যন্ত) চলাচলরত গাড়ি চালক ও ব্যবহারকারীদের বিকল্প সড়কে চলাচলের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।
রাষ্ট্রপতির বাণী : রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ এ উপলক্ষে প্রদত্ত বাণীতে দেশে বিদ্যমান সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি ও মৈত্রীর বন্ধনকে আরো দৃঢ় করে জাতীয় অগ্রগতি এবং সমৃদ্ধি অর্জনে তা কাজে লাগাতে সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। আবহমানকাল থেকে এ দেশে সব ধর্মের অনুসারীরা পারস্পরিক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য বজায় রেখে নিজ নিজ ধর্ম পালন করে আসছে। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই ঐতিহ্য অব্যাহত রেখে পারস্পর সৌহার্দ্য সম্প্রীতি অটুট রাখতে হবে।
রাষ্ট্রপতি শ্রীকৃষ্ণের জন্মতিথি ‘শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী’ উৎসবের সফলতা কামনা করেন।
প্রধানমন্ত্রীর বাণী : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সব নাগরিকের সুখ, শান্তি ও কল্যাণ কামনা করে বলেছেন, মানুষে-মানুষে ভ্রাতৃত্ব স্থাপন এবং সমাজে সাম্য প্রতিষ্ঠাই ছিল শ্রীকৃষ্ণের একমাত্র লক্ষ্য। আমরা বিশ্বাস করি শ্রীকৃষ্ণের আদর্শ শিক্ষা বাঙালির হাজার বছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সৌহার্দ্য ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধন আরো সুদৃঢ় করবে।
বিএনপির শুভেচ্ছা
জন্মাষ্টমী উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে বিএনপি।
দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ উপলক্ষে গতকাল পৃথক বাণী দিয়েছেন।
মির্জা ফখরুল বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের আরাধ্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন শুভ জন্মাষ্টমী অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব। সকল কালে সকল যুগে বিভিন্ন ধর্মের প্রবক্তারা মানুষকে সত্য, ন্যায় ও কল্যাণের পথে চালিত হওয়ার উপদেশ দিয়েছেন। শ্রীকৃষ্ণও একই উদ্দেশ্যে পৃথিবীতে আবির্ভূত হয়ে জনসমাজে বিরাজমান অন্যায়কে পরাস্ত করে শান্তি ও কল্যাণ স্থাপন করেন।
তিনি বলেন, বাংলাদেশেও অশুভ শক্তিকে পরাভূত করে গণতন্ত্রের শুভশক্তির উত্থান ঘটাতে হবে।

 


আরো সংবাদ