১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

জার্মানিতে মৃত্যুর ৫ মাস পর খবর জানল স্বজনেরা

-

আশিকুর রহমান সুমনের ছবিটা এখন শুধুই স্মৃতি। আর কোনো দিন হাসিমুখে তিনি ফিরবেন না। মৃত্যু তাকে নিয়ে গেছে সব চাওয়া পাওয়ার ঊর্ধ্বে। ৫ মাস পর তার মৃত্যুর খবর জেনে পুরো পরিবারটিই শোকাহত হয়ে পড়েছে। শোকসন্তপ্ত হয়ে পড়েছে বন্ধুস্বজন ও আত্মীয়-পরিজনরাও।
আশিকুর রহমান সুমন নড়াইল সদরের ওয়াহিদুর রহমানের ছেলে। তিন ভাই-বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। ২০০৮ সালে মার্কেটিংয়ে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জনের পর জার্মানিতে পাড়ি জমান। জার্মানিতে যাওয়ার জন্য সে দেশের ভাষার ওপর ডিপ্লোমা ডিগ্রিও নেন। থাকতেন জার্মানির হামবুর্গের রেন্ডসবার্গে। সুমনের ইচ্ছা ছিল আরো উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনের। ভর্তি হয়ে লেখাপড়াও করছিলেন তিনি। গত বছরের নভেম্বর মাসে হঠাৎই তার ব্রেইন টিউমার শনাক্ত হয়। স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। ডিসেম্বর মাসে তার মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার করেন জার্মানির চিকিৎসকরা। অস্ত্রোপচারের পর বাসায় ফিরে আসেন তিনি। কিন্তু এর মধ্যেই দেশের সাথে তার সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।
সুমনের বড় দুলাভাই প্রকৌশলী টিএস আইয়ুব জানিয়েছেন, পরিবারের সাথে তার যোগাযোগ বিচ্ছিন্নতায় আমরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ি এবং বিভিন্নভাবে খোঁজ খবর নিতে থাকি। চলতি সপ্তাহে জার্মানি থেকে আমরা তার মৃত্যুর খবর জানতে পারি। তিনি আরো জানান, আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি, অপারেশনের পর ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত তার অবস্থা ভালো ছিল। মার্চ মাসে একাকী রেন্ডসবার্গের একটি কক্ষে তার মৃত্যু হয়। এপ্রিল মাসের ১৭ তারিখে পুলিশ এসে বদ্ধ কক্ষের দরজা ভেঙে তার লাশ উদ্ধার করে। পরে স্থানীয় কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

 


আরো সংবাদ