১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

জনগণ ক্ষমতাসীনদের কাছ থেকে বারবার ধোঁকা খায় : পঙ্কজ ভট্টাচার্য

বস্তিতে আগুন ও আবাসন সঙ্কটের স্থায়ী সমাধান বিষয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবে পবার নাগরিক সংলাপ :নয়া দিগন্ত -

বস্তি কেন পুড়ে তা খতিয়ে দেখতে এবং নি¤œআয়ের মানুষদের আবাসনের জন্য জাতীয় বস্তি কমিশন গঠনের দাবি জানিয়েছেন ঐক্য ন্যাপের সভাপতি প্রবীণ রাজনীতিবিদ পঙ্কজ ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, জনগণ বারবার ক্ষমতাসীনদের কাছ থেকে ধোঁকা খায়।
প্রেস ক্লাবের ভিআইডি লাউঞ্জে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা) ও বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিকের উদ্যোগে গতকাল বৃহস্পতিবার পবা চেয়ারম্যান আবু নাসের খানের সভাপতিত্বে ও সম্পাদক ফেরদৌস আহমেদ উজ্জ্বলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সংলাপে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, বস্তিবাসীদের জন্য হাইকোর্টেও রুল জারি করা থাকলেও প্রতি বছর বস্তিতে আগুন লাগে আর বস্তি উচ্ছেদ হয়। কেন বস্তি পুড়ে তা খতিয়ে দেখা জরুরি। একটি পৃথক কমিশন গঠন করে সব অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুধাবন করে বস্তিবাসীদের আবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। তিনি আরো বলেন, জনগণের কাছে দায়বদ্ধ আবাসন কর্তৃপক্ষ তৈরি করে বস্তিবাসীদের ন্যায্য আবাসন অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বস্তি নিয়ে রাষ্ট্রের বর্ণবাদী দৃষ্টিভঙ্গিরও পরিবর্তন করতে হবে। সংলাপে বক্তারা সব অগ্নিকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের ও ক্ষতিপূরণের প্রদানের দাবি জানান।
সংলাপে বস্তিবাসী নেতারা বলেন, আমরা ভিক্ষা চাই না। আমরা চাই প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বস্তিবাসীদের জন্য যে ঘোষণা দিয়েছিলেন তার বাস্তবায়ন করা হোক।
সংলাপে আরো বক্তব্য রাখেন ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক ডা: ওয়াজেদুল ইসলাম খান, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক দেবাশীষ কুমার কুণ্ডু, পবার সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সোবহান, গবেষক ও লেখক পাভেল পার্থ, বস্তিবাসী নেতা কুলসুম বেগম, রাফেজা বেগম প্রমুখ।
সংলাপ থেকে মিরপুর ঝিলপাড়ের চলন্তিকা বস্তিতে ভয়াবহ অগিকাণ্ডে আনুমানিক পাঁচ হাজার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ১৫ কোটি টাকা দেয়ার পাশাপাশি ওই স্থানে তাদের দ্রুত পুনর্বাসনের ব্যবস্থার দাবি জানানো হয়। নেতৃবৃন্দ বলেন, বস্তিবাসীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী দ্রুত আবাসন তৈরির কাজ শুরু করতে হবে। বস্তিবাসীদের জন্য নির্মিত ফ্ল্যাট প্রাপ্তির প্রক্রিয়া স্বচ্ছ ও সহজলভ্য করতে হবে।

 


আরো সংবাদ