১৭ নভেম্বর ২০১৯

রিমান্ড শেষে জি কে শামীম ও খালেদ মাহমুদ কারাগারে

-

অর্থ পাচার আইনের মামলায় জি কে শামীম ও খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে জি কে শামীমকে আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আবু সাঈদ। ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
শামীমের পক্ষে তার আইনজীবী জামিন আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে জামিনের বিরোধিতা করা হয়। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। গত ২০ সেপ্টেম্বর গুলশানের নিকেতনে নিজ কার্যালয় থেকে জি কে শামীমকে সাত দেহরক্ষীসহ আটক করে র্যাব। পরে তার বিরুদ্ধে অস্ত্র, মাদক ও অর্থপাচার আইনে তিনটি মামলা হয়। ২১ সেপ্টেম্বর জি কে শামীমের অস্ত্র ও মাদকের দুটি মামলায় পাঁচ দিন করে ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ২ অক্টোবর মানিলন্ডারিং আইনের মামলায় পাঁচ দিন এবং অস্ত্র আইনের মামলায় চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।
অপর দিকে বহিষ্কৃত যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। মানিলন্ডারিং এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় সাত দিনের রিমান্ড শেষে খালেদকে আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। খালেদের পক্ষে তার আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। গতকাল ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরীর আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
উল্লেখ্য গত ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে গুলশানের বাসা থেকে খালেদ মাহমুদকে গ্রেফতার করে র্যাব। পরে গুলশান ও মতিঝিল থানায় খালেদের বিরুদ্ধে মোট চারটি মামলা করা হয়। গুলশান থানায় অস্ত্র, মাদক ও মানিলন্ডারিং আইনে পৃথক তিনটি মামলা এবং মতিঝিল থানায় মাদক আইনের আরেকটি মামলা করা হয়। গত ১৯ সেপ্টেম্বর খালেদকে অস্ত্র আইনের মামলায় চার দিন এবং মাদক মামলায় তিন দিনের রিমান্ডে নেয়ার আদেশ দেন আদালত। ২৭ সেপ্টেম্বর অস্ত্র এবং মাদক মামলায় পাঁচ দিন করে ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ৭ অক্টোবর মানিলন্ডারিং আইনের মামলায় চার দিন এবং মতিঝিল থানার মাদক মামলায় তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

 


আরো সংবাদ