২০ নভেম্বর ২০১৯

আবরার হত্যা মামলার আসামি তোহা গ্রেফতার

আবরার হত্যা মামলার আসামি তোহা গ্রেফতার - ছবি : সংগৃহীত

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ রাব্বী হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হোসেন মোহাম্মদ তোহাকে (২০) গাজীপুরের মাওনা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) বেলা ৩টার দিকে তাকে আটক করে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘আটকের পর তাকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে আসা হচ্ছে। আবরার হত্যা মামলার ১১ নম্বর এজাহারভুক্ত আসামি তোহা।’

তাকে নিয়ে আবরার হত্যা মামলায় ১৫ জনকে গ্রেফতার করা হলো।

এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে বুয়েটের শেরে বাংলা হল থেকে নিহত আবরার ফাহাদ রাব্বীর রুমমেট মিজানকে আটক করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা তাকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করেছি। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। কোনও সংশ্লিষ্টতা পেলে গ্রেফতার দেখানো হবে।’

উল্লেখ্য, আবরার ফাহাদকে রবিবার (৬ অক্টোবর) রাতে তার রুম থেকে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর রাত ৩টার দিকে শেরেবাংলা হলের নিচতলা ও দুইতলার সিঁড়ির মাঝখানের করিডোর থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সোমবার দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে আবরারের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ লাশের ময়নাতদন্ত করেন। তিনি বলেন, ‘ছেলেটিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।’

নিহত আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন।

এ হত্যার ঘটনায় সোমবার আবরারের বাবা বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের ১৩ জন নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়া এই হত্যাকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতার দায়ে ছাত্রলীগ থেকেও স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ১১ নেতাকে।


আরো সংবাদ