২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বিন সালমানের দুই সহযোগীর গ্রেফতার চায় তুরস্ক

জামাল খাশোগি -

সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে দুই সৌদি নাগরিকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছেন ইস্তাম্বুলের চিফ প্রসিকিউটর। এই দুজনই সৌদি আরবের শীর্ষ মহলের সাথে ঘনিষ্ঠ।

আল জাজিরা জানিয়েছে, এদের মধ্যে একজন ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের শীর্ষ সহযোগি ও অপরজন দেশটির বৈদেশিক গোয়েন্দা শাখার ডেপুটি প্রধান। দুজনের নামক যথাক্রমে সৌদ আল কাহতানি ও আহমাদ আসিরি।

গত ২ অক্টোবর ইস্তম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে ঢুকে আর বের হননি ভিন্নমতাবলম্বী সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি। বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় তিনি নিহত হয়েছেন এমন খবর প্রকাশ হলেও সৌদি আরবের পক্ষ থেকে বলা হয় খাশোগি কনস্যুলেট থেকে বের হয়ে গেছেন। কিন্তু তদন্তে বের হয়ে আসে যে খাশোগি কনস্যুলেট থেকে বের হওয়ার কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এক পর্যায়ে বিভিন্নি মিডিয়ায় গোপন সূত্রের বরাত দিয়ে খবর প্রকাশ হয় যে, খাশোগিকে কনস্যুলেটের ভেতরেই হত্যা করা হয়েছে। 

তুর্কি পুলিশের তদন্তেও ক্রমশ উন্মোচিত হতে থাকে রহস্য। এক পর্যায়ে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে দুই সপ্তাহ পর সৌদি আরব শিকার করে যে, খাশোগি কনস্যুলেটের ভেতরে হাতাহাতির এক পর্যায়ে নিহত হয়েছেন। কিন্তু তাদের সেই স্বীকারোক্তি হালে পানি পায়নি। তদন্তে জানা যায়, ঘটনার দিন সৌদি আরব থেকে ইস্তাম্বুল যাওয়া ১৫ সদস্যের একটি দল এই হত্যাকাণ্ড ঘটনায়। অত্যন্ত নৃশংসভাবে হত্যার পর খাসোগির শরীর টুকরো টুকরে করে ব্যাগে ভরে দূতাবাস থেকে বের করা হয়। তবে সেই লাশের খোজ এখনো পাওয়া যায়নি।

মঙ্গলবার এই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন করা হযেছে। এর আগে সৌদি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল কাহতানি ও আসিরি খাশোগি হত্যার পরিকল্পনায় জড়িত ছিলেন। এই দুজনই সৌদি যুবরাজের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। ধারণা করা কাহতানি সৌদি যুবরাজের ডান হাত। যুবরাজের মিডিয়া উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করতেন তিনি।


আরো সংবাদ