২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

যেকোনো পর্যায়ে শত্রুর হুমকির জবাব দিতে আমরা প্রস্তুত : ইরান

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি - ছবি : সংগৃহীত

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি বলেছেন, আমাদের অভ্যন্তরীণ শক্তি ও সামর্থ্যের ওপর ভর করে যেকোনো পর্যায়ে শত্রুর যেকোনো হুমকির জবাব দিতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি।

গত শুক্রবার জুমার নামাজে দেয়া খুতবায় ‘শক্তিমান হও শক্তিমান থাক’ ইরানের সর্বোচ্চ নেতার এমন বক্তব্যের কথা উল্লেখ করে হাতামি বলেছেন, ‘প্রতিরক্ষা শক্তি সব ক্ষেত্রে আত্মবিশ্বাস এনে দেয় অর্থাৎ সব ক্ষেত্রে উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথকে সুগম করে।’

ইরানে ইসলামি বিপ্লব বিজয়ের পর থেকে আমেরিকা সব ক্ষেত্রে বিশেষ করে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে উন্নয়ন থামিয়ে দেয়ার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে এসেছে। বিপ্লব বিজয়ের প্রথম থেকেই ইরানের ইসলামি সরকার ব্যবস্থাকে উৎখাত করার জন্য এমন কোনো অপকর্ম নেই যা আমেরিকা করেনি। এ ব্যাপারে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, গত ৪০ বছরে ইরানের সরকার ব্যবস্থাকে উৎখাতের ষড়যন্ত্র থেকে আমেরিকা এক মুহূর্তের জন্যও বিরত থাকেনি। তিনি গতকাল (সোমবার) সংসদ অধিবেশনে দেয়া ভাষণে বলেছেন, আমেরিকার একজন পদস্থ কর্মকর্তা আমাকে জানিয়েছিলেন, ‘ইরানের সরকার ব্যবস্থা উৎখাতের ব্যাপারে আমি ও প্রেসিডেন্ট বুশ একমত ছিলাম কিন্তু আমি জানি এটা বাস্তবায়ন সম্ভব নয় কিন্তু বুশ মনে করতেন ইরান সরকারকে উৎখাত করা সম্ভব।’

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, এ ধরনের ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য মার্কিন কর্মকর্তাদের সাম্রাজ্যবাদী আচরণের বহি:প্রকাশ যা কিনা শুধু ইরানের ক্ষেত্রেই সীমাবদ্ধ নেই বরং বিশ্বের আরো বহু দেশ এমনকি চীন, রাশিয়া ও ইউরোপীয় দেশগুলোর সঙ্গেও আমেরিকা একই আচরণ করছে।

যদিও ইরানের নীতি হচ্ছে আত্মরক্ষামূলক এবং এ অঞ্চলে যেকোনো উত্তেজনা সৃষ্টির বিরোধী কিন্তু শত্রুরা আগ্রাসনের ধৃষ্টতা দেখালে ইরানও উপযুক্ত জবাব দিতে কুণ্ঠাবোধ করবে না। ইরানের সশস্ত্র বাহিনী অত্যন্ত সাহসিকতার সাথে শত্রুকে মোকাবেলা করবে এবং নিজ দেশের জনগণ, ভূখণ্ড ও ইসলামি আদর্শ রক্ষায় সব রকম ব্যবস্থা নেবে।

বিপ্লব বিজয়ের পর গত ৪১ বছরে ইরানের জনগণ চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধসহ বহু রকম ষড়যন্ত্র সাফল্যের সাথে মোকাবেলা করে এসেছে এবং বর্তমানেও শত্রুর যেকোনো পদক্ষেপের জবাব দিতে ইরান প্রস্তুত রয়েছে। চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এবং নিজস্ব শক্তির ওপর ভর করে ইরান নিজের সামরিক শক্তিকে সমৃদ্ধ করেছে। প্রতিরক্ষা যুদ্ধের সময় যে আধ্যাত্মিক, রাজনৈতিক ও সামরিক শক্তি অর্জিত হয়েছে তা ধরে রাখার চেষ্টা করছে ইরান।

যুদ্ধ কোনো দেশের জন্যই মঙ্গলজনক নয় উল্লেখ করে ইরানের সেনাবাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল সাইয়্যেদ আব্দুর রহিম মুসাভি বলেছেন, ‘ইরান কখনো যুদ্ধ শুরু করবে না কিন্তু কিভাবে আত্মরক্ষা করতে হয় তা দেশটি ভাল করেই জানে।’

যাইহোক, প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি যেকোনো পর্যায়ে শত্রুর যেকোনো হুমকির জবাব দিতে ইরান প্রস্তুত রয়েছে বলে যে হুমকি দিয়েছেন তার এরই আলোকে মূল্যায়ন করতে হবে। সূত্র : প্রেসটুডে


আরো সংবাদ