২৫ আগস্ট ২০১৯

মিটু-এবার শুটিং স্পটে, তনুশ্রীর পাশে অক্ষয় 

তনুশ্রীর পাশে অক্ষয়  - সংগৃহীত

সাজিদ খান পরিচালনায় তৈরি হচ্ছিল ‘হাউজফুল ৪’। ছবির টিম নিয়ে সাজিদ শ্যুটিংয়ের আস্তানা গেড়েছিলেন ইতালিতে। অক্ষয় সহ সেইখানে ছিলেন অক্ষয় কুমার, কৃতী স্যানন, কৃতী খারবান্দা, নানা পাটেকার, ববি দেওল সহ অন্যান্য অভিনেতা, অভিনেত্রী। ইতালির শ্যুটিং স্কেডিউল শেষ করেই ফিরতেই অক্ষয় সামাজিক মাধ্যমে জানিয়েছেন যে তিনি ‘হাউজফুল ৪’এর শ্যুট বন্ধ করে দিয়েছেন। ২৮ বছরের কেরিয়ারে এই প্রথম শ্যুট ক্যানসেল করলেন খিলাড়ি কুমার। তার কথায়, তিনি এমন কোনও মানুষের সাথে কাজ করত উৎসাহি নন যারা মহিলাদের হেনস্থা করেছেন।

টুইটারে একটি পোস্টে অক্ষয় লিখেছেন, ‘গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে আমি দেশে ফিরেছি। প্রত্যেকটা খবরই আমার চোখে পড়েছে। সবকটাই একই রকমভাবে ভীষণই বিরক্তিকর। আমি ‘হাউজফুল ৪’র প্রযোজকদের অনুরোধ করে শ্যুটিং বন্ধ করে দিয়েছি। যতক্ষণ না তদন্ত হচ্ছে আমি শ্যুটিং করব না। আমি কোনও মানুষের সাথে কাজ করতে চাই না যাদের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এসেছে, এবং যারা সত্যিই এই ঘটনায় দোষী।’ অক্ষয়ের এই পোস্টের পর তার প্রশংসায় ভরছে টুইটার ফিড।

অন্তত তিনজন নারী অভিযোগ তুলেছেন সাজিদ খানের বিরুদ্ধে। তাদের মধ্যে রয়েছেন অভিনেত্রী সালুনি চোপড়া, র‍্যাচেল হোয়াইট ও সাংবাদিক কারিশমা উপাধ্যায়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁরা জানিয়েছেন তাদের সাথে সাজিদ খানের উৎপীড়নমূলক অন্যায় আচরণের ঘটনা। তাদের দাবি, প্রত্যেকের কাছেই নোংরা আবদার করেছেন সাজিদ খান, দিয়েছেন কুপ্রস্তাব। এদের মধ্যে সাংবাদিক কারিশমার করা অভিযোগটি ভয়াবহ। আর সালুনিকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, যা বলবে তা না করলে ছবিতেই নেবেন না সাজিদ।

এসব অভিযোগের কথা জানার পর ‘হাউসফুল-৪’-এর শুটিং বন্ধ করে দিয়েছেন ছবির নায়ক অক্ষয় কুমার। ওই ছবির প্রযোজককে বলেছেন, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত ছবির শুটিং বন্ধ রাখতে হবে। ছবির পরিচালক সাজিদ খানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের তদন্ত করতে হবে আগে। ঘটনা সত্য হলে তাঁর সঙ্গে কাজ করবেন না অক্ষয়।

সাজিদ খানএদিকে অভিযুক্ত পরিচালক সাজিদ খান জানিয়েছেন, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত ছবির কাজ করবেন না তিনি নিজেও।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি লিখেছেন, ‘আমর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে সেটা নিয়ে আমি, আমার পরিবার, আমার প্রযোজক ও আমার ছবি ‘হাউসফুল’-এর তারকারা সবাই চাপের মধ্যে আছি। ঘটনার নৈতিক দায় আমাকেই নিতে হবে। সে জন্য পরিচালকের পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি আমি। যতক্ষণ না আমি নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পারি, ততক্ষণ ছবির কাজ করছি না। সাংবাদিক বন্ধুদের প্রতি অনুরোধ থাকবে, সত্য প্রকাশের আগে তারা যেন কিছু না লেখেন।’ সাজিদ খান পরিচালনা করেছেন ‘হিম্মতওয়ালা’, ‘হে বেবি’, ‘হাউসফুল’, ‘হাউসফুল-২’ ছবিগুলো।

‘হাউসফুল-৪’ ছবিতে কাজ করার কথা ছিল অভিনেতা নানা পাটেকারের। তার বিরুদ্ধে তনুশ্রী দত্ত যৌন হয়রানির অভিযোগে মামলা করেছেন। 


আরো সংবাদ