২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ওয়ার্ল্ড আরচারিতে রোমান সানার `ব্রোঞ্জ' জয়

ওয়ার্ল্ড আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপে রিকার্ভ এককে বাংলাদেশের রোমান সানা ৭-১ সেটে ইতালির মৌরো নেসপোলিকে হারিয়ে ব্রোঞ্জ পদক জয় করেন। এর আগে সেমি ফাইনালে ওঠে টোকিও অলিম্পিকের টিকিট পান।

‘এই বিশ্বকাপ আরচারি থেকে ভারতের তিনজন টোকিও অলিম্পিকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। আমাদের দেশ থেকে রোমান সানা। আমরা গর্বিত। সেই সাথে রোমান সানার এই অর্জন দেশবাসীকে উৎসর্গ করলাম।’ রোববার বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) ডাচ-বাংলা অডিটরিয়ামে কথাগুলো বললেন আরচারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজীব উদ্দিন আহমেদ চপল।

আগামী মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় নেদারল্যান্ডসকে থেকে দেশে ফিরবেন সরাসরি অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করা দেশের দ্বিতীয় ক্রীড়াবিদ রোমান সানা। ‘উই নিড টু হিরো’ নামে রোমান সানাকে নিয়ে দেশব্যাপী প্রচারণার কথাও জানান পৃষ্ঠপোষক তীরের ব্র্যান্ড ম্যানেজার রুবাইয়াত হোসেন। এ সময় বিওএর মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা এবং আরচারি ফেডারেশনের সভাপতি লে. জেনারেল (অব:) মো: মইনুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে চপল আরো বলেন, ‘২০০৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ আরচারি ফেডারেশন। গত ১৫ বছরের প্রচেষ্টায় ধীরে ধীরে কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছে তারা। এর আগে ২০০৯ সালে ইয়ুথ অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিলেন বাংলাদেশের আরচার ইমদাদুল হক মিলন। রোমান সানার পাশাপাশি রিকার্ভ মিশ্র দলগতের কোয়ার্টার ফাইনালেও খেলেছিলেন রোমান সানা, হাকিম আহমেদ রুবেল ও তামিমুল ইসলাম। কিন্তু কোরিয়ার কাছে হেরে দলগত এই ইভেন্টের সেমিফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ। নইলে আরো একটি ইভেন্টে টোকিও অলিম্পিকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারত বাংলাদেশ।’

বিওএর মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা বলেন, ‘২০১৬ সালে রিও অলিম্পিকে গলফার সিদ্দিকুর প্রথমবার সরাসরি খেলার যোগ্যতা অর্জন করেন। দ্বিতীয় বাংলাদেশী হিসেবে রোমান সানা খেলছে অলিম্পিকে।


আরো সংবাদ