২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বাদল ফরাজীর মুক্তি চেয়ে করা রিট খারিজ

-

একটি হত্যা মামলায় দীর্ঘ ১০ বছর ভারতে কারাভোগের পর দেশে ফেরা বাদল ফরাজীর মুক্তির আদেশ চেয়ে করা রিট আবেদনটি ‘উত্থাপিত হয়নি মর্মে’ খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো: খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ গতকাল এ আদেশ দেন।
আদালত বলেছেন, সরকার যেহেতু উদ্যোগী হয়ে বাদল ফরাজীকে ভারত থেকে দেশে ফিরিয়ে এনেছে, সেহেতু সরকারই হয়তো তার মুক্তির পদপে নেবে। এ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা দেয়া ঠিক হবে না।
সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হুমায়ুন কবির পল্লব ও মোহাম্মদ কাওছার ভারত থেকে বাদলের দেশে ফেরার বিষয়টি গত রোববার হাইকোর্টের নজরে আনলে তাদের রিট আবেদন করতে বলা হয়েছিল। সে অনুযায়ী হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় তারা এ রিট আবেদন করেন। গতকাল বুধবার আদালতে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।
রিট আবেদনে বলা হয়, বাদল ফরাজী ভুল বিচারের শিকার হয়ে ভারতে ১০ বছর কারাভোগ করেছেন। তিনি নির্দোষ হওয়ার পরও দেশে ফিরিয়ে এনে তাকে আবার কারাগারে নেয়া হয়েছে, যা সংবিধানের ২৭, ৩১, ৩২, ৩৩, ৩৬ ও ৪৪ অনুচ্ছেদের লঙ্ঘন। এ যুক্তি দেখিয়ে বাদল ফরাজীকে কারামুক্ত করতে প্রয়োজনীয় পদপে নিতে বিবাদিদের প্রতি আদালতের নির্দেশনা ও রুল চাওয়া হয় ওই আবেদনে। স্বরাষ্ট্র সচিব, আইন সচিব, পররাষ্ট্র সচিব ও পুলিশপ্রধানকে বিবাদি করা হয়েছে।
গতকাল রিট আবেদনটি খারিজের আদেশে আদালত বলেন, ভারতের আদালতের রায়ে দেখা যাচ্ছে তারা তাদের দেশের ওই হত্যা মামলায় বাংলাদেশের বাদল ফরাজীকেই সাজা দিয়েছে। তবে আমরা দেখতে পাচ্ছি সরকার তার বিষয়ে পজেটিভ। সরকার পদপে নিয়ে বাদল ফরাজীকে তিহার জেল থেকে এ দেশের জেলে নিয়ে এসেছে। এখন তার মুক্তির ব্যাপারে সরকারই হয়তো কোনো পদপে নেবে। এ েেত্র সরকারের প্রতি বাদল ফরাজীর মুক্তির জন্য কোনো নির্দেশনা দেয়া ঠিক হবে না। তাই আমরা রিটটি উত্থাপন হয়নি মর্মে খারিজ করছি।


আরো সংবাদ