১৭ নভেম্বর ২০১৯
আফসার আহমদ সিদ্দিকীর স্মরণসভা

গণতন্ত্র না থাকলে দুর্নীতির দাপট বাড়বে : গয়েশ্বর

-

দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে বন্দী থাকায় জাতীয়তাবাদী শক্তি নিথর হয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। গতকাল শুক্রবার সকালে এক আলোচনা সভায় তিনি বলেন, আসুন আমরা দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবÑ এটা ভাবি। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার কথা কেন ভাবছি? কারণ তাকে ছাড়া জাতীয়তাবাদী শক্তি নিথর হয়ে যাচ্ছে। চেতনার যে ছেদগুলো সেখানে নতুন রক্ত সঞ্চালিত হচ্ছে না, নতুন রক্ত সৃষ্টি হচ্ছে না। সেই কারণে আমাদের এই জাতীয়তাবাদী শক্তি, স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের পক্ষের শক্তির জন্য যে জায়গাটা তা যদি নি¤œগতি ধারণ করে তখনই বিদেশীদের স্বার্থে দেশের স্বার্থ বিরোধী চুক্তি হয়।
বিএনপির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মরহুম আফসার আহমদ সিদ্দিকীর ১৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের মওলানা আকরম খাঁ হলে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে আফসার আহমদ স্মৃতি ফাউন্ডেশন। সংগঠনের সভানেত্রী ও মরহুম নেতার সহধর্মিণী জাহানারা সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, মরহুমের ছেলে জামিল আহমদ সিদ্দিকী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
গয়েশ্বর বলেন, দেশের স্বার্থবিরোধী চুক্তি তারা কেন করেছে? জনসমর্থনহীন অবস্থায় ক্ষমতায় যেতে লুটপাট করে নিজেদেরকে বড় করার অপচেষ্টা থেকেই আজ স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে, অর্থনীতিতে দেউলিয়াত্ব শেষ প্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছে। রাজনীতি বলতে কিছু নেই। আছে শুধু সক্রিয়ভাবে দুর্নীতি। রাজনীতি ও গণতন্ত্র যদি অনুপস্থিত থাকে, সেখানে দুর্নীতি অপশক্তির দাপট বাড়বে। এই ভাবনাগুলো সামনে রেখে আমাদের সামনে এগোতে হবে।
তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া আমাদের উৎসাহ-উদ্দীপনা। তিনি জেলে আছেন, আমাদের সেই উৎসাহ-উদ্দীপনা ভোঁতা হয়ে গেছে। সেখানে জাতীয়তাবাদী চেতনার বিস্ফোরণ ঘটে না কেন? তার মানে আমরা ও আমাদের চেতনার মধ্যে ফারাক আছে অথবা আমাদের প্রতিশ্রুতির অভাব আছে। প্রতিশ্রুতি যদি শক্ত অবস্থানে আসে তবে প্রতিশ্রুতি থেকে সাহসের সঞ্চার হয়। লক্ষ্য অর্জনের জন্য যখন আমরা প্রতিশ্রুতি নিয়ে এগোবো তখন কোনো বাধাই আটকাতে পারবে না।
গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, পদের জন্য চেয়ার দখল করা যাবে, কিন্তু জনগণের মন দখল করা খুব কঠিন। ভোগবাদী সমাজব্যবস্থায় ক্ষুধার জ্বালা মিটাতে গিয়ে মানবিক মূল্যবোধ ভূলুণ্ঠিত। এখন সারা বিশ্ব ও বাংলাদেশের মধ্যে যে প্রতিযোগিতা চলছে সেটি হচ্ছে কে কত টাকা করে দিতে পারো? আমার ভাই না খেয়ে মারা যাচ্ছে যাক; কিন্তু আমার এখন টাকা দরকার। প্রতিটি মানুষ নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত। আর এরকম পরিস্থিতি যখন সৃষ্টি হয় তখন জাতি তার শক্ত অবস্থানে দাঁড়াতে পারে না। জাতীয় ঐক্য ছাড়া কোনো দেশের পক্ষেই রাজনৈতিক সামাজিক অর্থনৈতিক শক্ত অবস্থানে যাওয়া সম্ভব নয়।


আরো সংবাদ