১৭ নভেম্বর ২০১৯
মতবিনিময় সভায় ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক

দেশপ্রেম ও জনসেবার ব্রত নিয়ে রাজনীতি করছি

-

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন বলেছেন, চাওয়া-পাওয়ার জন্য নয়, দেশপ্রেম ও জনসেবার ব্রত নিয়ে রাজনীতিতে এসেছি। তিনি বলেন, একজন রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে গর্ববোধ করলেও যখন দেখি মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনাগুলো অনুপস্থিত তখন অনেক কষ্ট হয়। মিথ্যা মামলায় কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের কথাও জানান ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক।
গত রোববার সন্ধ্যায় গোপীবাগের বাসবভনে ঢাকা মহানগরীর কোতোয়ালি থানা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। থানা বিএনপি সভাপতি হায়দার আলী বাবলার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে থানা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক হাজী আনোয়ার আজিম, জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল নেতা সুমন ভূঁইয়া, কাউন্সিলর সুরাইয়া বেগম, ছাত্রদল নেতা আবদুল্লাহ মামুনসহ স্থানীয় নেতারা বক্তৃতা করেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে ডিএসসিসি কাউন্সিলর মকবুল হোসেন টিপু, কাউন্সিলর আবদুল কাদের, সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ মোহন, ওয়ারী থানা বিএনপি সভাপতি হাজী লিয়াকত প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সভার শুরুতে অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার আশু রোগমুক্তি কামনায় মুনাজাত করা হয়।
সভায় স্থানীয় নেতারা বলেন, পুরান ঢাকার মাটি ও মানুষের নেতা বিদেশে চিকিৎসারত সাদেক হোসেন খোকার অনুপস্থিতিতে তারা অভিভাবকহারা হয়ে অনেকটা হতাশায় ভুগছিলেন; কিন্তু ছেলে ইশরাক হোসেনের সক্রিয় রাজনীতিতে অংশগ্রহণে তাদের সে হতাশা দূর হয়েছে। তারা ইশরাক হোসেনের পাশে থেকে রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
ইশরাক হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ কর্মীরাও দুর্নীতির মাধ্যমে রাষ্ট্রের শত শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এসব অভিযোগ বায়বীয় নয়, প্রতিদিন বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর রেরোচ্ছে, এর প্রমাণ মিলছে। অথচ বিএনপি চেয়ারপারসন, তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় মিথ্যা মামলায় কারারুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। তিনি বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনকে বেগবান করতে সবাইকে এককাতারে শামিল হওয়ার আহ্বান জানান। বিজ্ঞপ্তি।


আরো সংবাদ