১০ ডিসেম্বর ২০১৯

অভিনেত্রী নওশাবার মামলা হাইকোর্টে স্থগিত

-

ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলার কার্যক্রম ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।
এ ছাড়াও কেন ওই মামলার কার্যক্রম বাতিল করা হবে না এ মর্মে রুলও জারি করেছেন আদালত। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে সরকারের সংশ্লিষ্টদেরকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
নওশাবার এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি মো: রেজাউল হক ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ গতকাল বুধবার রুলসহ এই আদেশ দেন।
আদালতে নওশাবার পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়–য়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিনুর রহমান চৌধুরী টিকু।
পরে ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়–য়া সাংবাদিকদের বলেন, ২০১৮ সালের ৫ আগস্ট তথ্যপ্রযুক্তি আইনে নওশাবার বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়। কিন্তু ওই বছর ৮ অক্টোবর তথ্যপ্রযুক্তি আইন বিলুপ্ত করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কার্যকর করা হয়।
নতুন আইনের ৬১ ধারা মতে, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের কোনো মামলা বিচারাধীন থাকলে তা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে চলমান থাকবে। কিন্তু এ মামলার অভিযোগপত্র দেয়া হয় চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল। আর অভিযোগ আমলে নেয়া হয় ৩ সেপ্টেম্বর। তাই এ মামলার কার্যক্রম অবৈধ। এ কারণে মামলা বাতিল চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল জানিয়ে এই আইনজীবী বলেন, আদালত ছয় মাসের স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেছেন।
উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৪ আগস্ট নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে ফেসবুক লাইভে আসেন নওশাবা। ফেসবুক লাইভে তিনি বলেন, জিগাতলায় আন্দোলনকারীদের চারজনকে মেরে ফেলা হয়েছে, একজনের চোখ উপড়ে ফেলা হয়েছে।
জিগাতলায় এ ধরনের ঘটনা নিয়ে তার এ ভিডিও মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়। ওই দিনই রাজধানীর উত্তরার বাসা থেকে তাকে আটক করেন র্যাব সদস্যরা।

 


আরো সংবাদ