২৩ জানুয়ারি ২০২০

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে মার্চে রুট নির্ধারণ : সাঈদ খোকন

-

রাজধানীর সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে আগামী মার্চ মাসের মধ্যেই নির্দিষ্ট রুট নির্ধারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচন ও ডেঙ্গু পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের কাজের গতি কিছুটা স্তিমিত ছিল। এখন আবার পুরোদমে কাজ শুরু হয়েছে। আগামী মার্চ মাসের মধ্যেই ২০ থেকে ২২টি রুট নির্ধারণ করা হবে। এই সময়ে যে ছয়টি কোম্পানির অধীনে এসব রুটে বাস চলাচল করবে তাও ঠিক হয়ে যাবে। 
গতকাল ডিএসসিসির নগর ভবনে বাস রুট রেশনালাইজেশন বিষয়ে গঠিত স্টিয়ারিং কমিটিরর ১১তম সভা শেষে মেয়র সাংবাদিকদের এ কথা জানান। এ সময় কমিটির সদস্যসচিব ও ডিটিসিএ নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রকিবুর রহমান, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ কামরুল আহসান, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এহছানে এলাহী, ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহমেদ, গণপরিবহন বিশষজ্ঞ ড. এস এম সালেহ উদ্দিন, রাজউকের নগর পরিকল্পনাবিদ মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের পরিকল্পনা অনুবিভাগের যুগ্ম প্রধান মোহাম্মদ জাকির হোসেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সভাপতি ওসমান আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 
সাঈদ খোকন বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে আমরা নানা উদ্যোগ নিয়েছি। পুরান ঢাকার গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনতে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে পরীক্ষামূলক চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু করা হবে। পুরান ঢাকার সদরঘাট, ধোলাইপাড়, ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার হয়ে রামপুরা চলাচল করবে বিআরটিসির এসব সার্ভিস। তবে এখানে সফল হলে আমরা স্থায়ীভাবে এ সার্ভিস চালু করব। তিনি বলেন, বাসের রুট রেশনালাইজেশন বিষয়ে আমরা এ মাসের শেষ সপ্তাহে বাস মালিক নেতাদের সাথে এবং পরে সব বাস মালিকদের সাথে বৈঠক করব। সেখানে ঐকমত্যের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এ ছাড়া ঘাটারচরে বাস বে ও টিকিট কাউন্টার নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে। ডিএমপি এবং উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মধ্যে আলোচনার ভিত্তিতে দ্রæত সময়ে এটা করা হবে।
প্রকল্পের অগ্রগতি বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের বজাবে মেয়র বলেন, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে শতভাগ সফলতা দেখাতে না পারলেও অন্তত পাইলট প্রজেক্ট নগরবাসীকে উপহার দিতে পারব।


আরো সংবাদ