২৪ জানুয়ারি ২০২০
দিনাজপুর রেলস্টেশন

টিকিট নিয়ে অনিয়মের অভিযোগে স্টেশন মাস্টারসহ ৪ জন বরখাস্ত

-

ট্রেনের টিকিট বিক্রিতে অনিয়ম দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় দিনাজপুর রেলস্টেশন মাস্টার শংকর কুমার গাংগুলিসহ মোট চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
গতকাল রোববার রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের নির্দেশে তাদের বরখাস্ত করা হয়েছে বলে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার শরীফুল আলমের পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।
বরখাস্ত হওয়া অন্য তিনজন হচ্ছেন দিনাজপুর স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত বুকিং সহকারী মো: আব্দুল আল মামুন, মো: রেজওয়ান সিদ্দিক ও আব্দুল কুদ্দুস।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দিনাজপুর রেলস্টেশনে টিকিট বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগ উঠার পর মন্ত্রীর নির্দেশে বিষয়টি একজন কর্মকর্তা দিয়ে গোপনে তদন্ত করানো হয়।
প্রতিবেদন অনুযায়ী গত ৩/৪ও ৫ ডিসেম্বর দিনাজপুর স্টেশনে দ্রুতযান এক্সপ্রেস, পঞ্চগড় এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের কোনো আসন খালি নেই উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তি লাগানো হয়। টিকিট বিক্রির কার্যক্রমের খোঁজ নিয়ে ওই কর্মকর্তা জানতে পারেন ৩ থেকে ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত দিনাজপুর স্টেশনে ওই তিন ট্রেনের মোট দুই হাজার নয় শত আটটি টিকিট বরাদ্দের বিপরীতে এক হাজার আট শ’ একুশটি টিকিট বিক্রি হয় এবং এক হাজার এক শ’ পাঁচটি টিকিট অবিক্রীত থেকে যায়। অথচ স্টেশনের দায়িত্বরতরা আসন খালি না থাকার বিজ্ঞপ্তি কাউন্টারে সাঁটিয়ে দিয়েছিলেন।
তথ্য প্রমাণে দিনাজপুর স্টেশনের অনুকূলে খালি থাকা সত্ত্বে¡ও আসন খালি নেই বিজ্ঞপ্তিটি যাত্রী সাধারণের সাথে প্রতারণা। একই সাথে বাংলাদেশ রেলওয়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলেও তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এরপরই গতকাল রেলপথমন্ত্রীর নির্দেশে এই ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে উল্লিখিত চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।


আরো সংবাদ