২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০
নাইমুল আবরার হত্যা মামলা

গীতিকার কবির বকুলের বাসায় পুলিশ

-

কিশোর আলোর অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নাইমুল আবরারের মৃত্যুর ঘটনায় পাঁচবারের জাতীয় পুরস্কার পাওয়া গীতিকার কবির বকুলকে গ্রেফতার করতে তার বাসায় গিয়েছিল পুলিশ। তবে তাকে না পেয়ে ফিরে যায় তারা। গতকাল শনিবার দুপুরে হাতিরঝিল থানা পুলিশের একটি দল কবির বকুলের বাসায় যায়। বিষয়টি নিয়ে কবির বকুলের স্ত্রী কণ্ঠশিল্পী দিনাত জাহান মুন্নী তার ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন। ওই পোস্টে মুন্নী লিখেন, ‘বাসায় পুলিশ এসেছে কবির বকুলকে গ্রেফতার করতে। আমার সন্তানগুলো শক্ত হয়ে তাকিয়ে আছে আমার দিকে!! জীবনে এমন অনুভূতির সামনে পড়তে হবে- তা কখনো কল্পনাও করিনি!!’ মুন্নী বলেন, ‘পুলিশ দেখে সন্তানরা অনেক ভয় পেয়ে গিয়েছিল। পুলিশ শিশুদের সাথেও কথা বলেছে। জানতে চেয়েছে, ওর বাবা (কবির বকুল) কোথায়? এরপর কিছুক্ষণ থেকে পুলিশ চলে গেছে। এমন একটি পরিস্থিতির মুখোমুখি হবো ভাবিনি’।
জানতে চাইলে হাতিরঝিল থানার ওসি আবদুর রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, গ্রেফতারি পরোয়ানার ভিত্তিতে পুলিশের একটি টিম তার বাসায় গিয়েছিল। তবে তাকে পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য, গত ১ নভেম্বর বিকেলে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের ক্যাম্পাসে কিশোর আলোর অনুষ্ঠান চলাকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায় শিক্ষার্থী নাইমুল আবরার। এ ঘটনার পর থেকেই আয়োজকদের অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করে আসছে শিক্ষার্থীরা। এরপর গত ৬ নভেম্বর প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান, পত্রিকাটির সাময়িকী কিশোর আলোর সম্পাদক আনিসুল হকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন আবরারের বাবা মুজিবুর রহমান। পরে চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। মামলার অপর আসামিরা হলেন- কবির বকুল, শুভাশিষ প্রামাণিক শুভ, মহিতুল আলম পাভেল, শাহপরান তুষার, জসিম উদ্দিন অপু, মোশারফ হোসেন, সুজন ও কামরুল হায়দার।


আরো সংবাদ