২২ নভেম্বর ২০১৯

রানু মণ্ডলের গলা ‘ঐশ্বরিক’

গান শুনে রানু মণ্ডলকে নিজের সিনেমায় প্লেব্যাকের প্রস্তাব দেন হিমেশ রেশমিয়া। তার পরবর্তী সিনেমা 'হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হির'র জন্য রানুকে দিয়ে 'তেরি মেরি' গান রেকর্ড করান।

রানু মণ্ডল সম্পর্কে হিমেশ রেশমিয়া বলেন, ‘রানু মণ্ডলের গলা ঐশ্বরিক। এত সুন্দর করে গান গেয়েছেন যে, তা শুনলে সবাই ‘থ’ হয়ে যাবেন। রানু মণ্ডলের গান শুনে শ্রোতারা মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে যাবেন।’

পশ্চিমবঙ্গের রেলস্টেশন ও রাস্তাঘাটে রোদ-বৃষ্টিতে গান গাইতেন রানু মণ্ডল। তার একটি গানের ক্লিপ অতীন্দ্র চক্রবর্তী নামের এক তরুণের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। এখন তিনি তারকা বনে গেছেন।

সেই গান ভাইরাল হওয়ার পর পশ্চিমবঙ্গের রানাঘাট রেলস্টেশ থেকে রানু মণ্ডলকে নিয়ে যাওয়া হয় মুম্বাইয়ের রেকর্ডিং স্টুডিওতে। গত সপ্তাহে বলিউডে প্লেব্যাক করেন রানু মণ্ডল। ‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হির’ ছবির হিমেশ রেশমিয়ার সুরে একটি গান ‘তেরি মেরি’ রেকর্ড করেন তিনি। সেদিন রাতে রানুর গাওয়া সেই গান নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে হিমেশ রেশমিয়া শেয়ার করেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই গানটি ভাইরাল হয়ে যায়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, রানুর গাওয়া প্রথম গানের জন্য তাকে ছয় থেকে সাত লাখ রুপি দিয়েছেন হিমেশ রেশমিয়া। তবে প্রথমে সেই অর্থ নিতে চাননি রানু। পরে হিমেশ জোর করেই রানুর হাতে সেই টাকা তুলে দেন।

শোনা যাচ্ছে, রানুকে এবার দেখা যাবে 'বিগ বস'র ঘরে। আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে 'বিগ বস'। শোনা যাচ্ছে, এবার বিগ বসের সিজন ১৩-তে যোগ দেওয়ার জন্য খোদ সালমান খানের ডাক পেয়েছেন রানাঘাটের রানু মণ্ডল।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা রানু মণ্ডলের পুরো নাম রানু মারিয়া মণ্ডল। ১৯৬৫ সালে পশ্চিমবঙ্গের কৃষ্ণনগর জেলার কার্তিকপাড়া গ্রামে তার জন্ম। বাবা আদিত্য কুমার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ছিলেন। ছোটবেলাতেই মা–বাবাকে হারান রানু মণ্ডল। বড় হয়েছেন অন্যের বাড়িতে। স্কুলে যাওয়া হয়নি কোনোদিন। তবে সুরেলা কণ্ঠ, পরিষ্কার উচ্চারণ ও সরলতা ছিল তার সম্পদ। সেটাই আজ রানুকে তারনা খ্যাতি দিয়েছে।


আরো সংবাদ