২২ আগস্ট ২০১৯

সেই ফেরিওয়ালার মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী হাসেন আলী (৫৫) নামে এক ব্যক্তি নিখোঁজের পর  খুন হয়েছে।

নিখোঁজের দু’দিন পর  রোববার (৪ আগস্ট) দুপুরে জেলার মেলান্দহ উপজেলার কাঙালকুর্শা গ্রামে ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে ওই ব্যবসায়ীর অর্ধগলিত ও মাথাবিহীন বিবস্ত্র মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর ঘণ্টাখানেকের মধ্যে জেলার ইসলামপুর উপজেলার গোয়ালেরচর ইউনিয়নের চরচারিয়া গ্রামে একই নদ থেকে তাঁর মাথা উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য ওই লাশটি জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত হাসেন আলী জেলার ইসলামপুর উপজেলার গোয়ালেরচর ইউনিয়নের সভুকূড়া গ্রামের ইয়াজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি গ্রামে গ্রামে ফেরি করে মাটির তৈরি তৈজসপত্র বিক্রি করতেন।

গত শুক্রবার রাত থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি। দুর্বৃত্তরা হাসেন আলীকে হত্যার পর লাশ ব্রহ্মপুত্র নদের পৃথক স্থানে ফেলে দিয়েছিল বলে ধারণা করছে পুলিশ। 

পুলিশ জানায়, মেলান্দহের কাঙালকুর্শা গ্রামে ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে অর্ধগলিত ও বিবস্ত্র অবস্থায় অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির মাথাবিহীন দেহ উদ্ধার করেছে মেলান্দহ থানা পুলিশ। খবর পেয়ে হাসেন আলীর ছেলে রইদা চাঁন ঘটনাস্থলে গিয়ে দেহটি তাঁর নিখোঁজ বাবার বলে শনাক্ত করেন। এর ঘণ্টাখানেকের মধ্যে ইসলামপুরের চরচারিয়া গ্রামে একই নদ থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির মাথা উদ্ধার করেছে ইসলামপুর থানা পুলিশ। খবর পেয়ে স্বজনরা থানায় গিয়ে মাথাটি হাসেন আলীর বলে শনাক্ত করেন।

এব্যাপারে ইসলামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন সাংবাদিকদের জানান, নিহত হাসেন আলীর খন্ডিত মাথাটিও জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।  সেখানে একত্র করেই সম্পূর্ণ লাশের ময়নাতদন্ত করা হবে। নৃশংস এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।


আরো সংবাদ