২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ময়মনসিংহে বিরোধপূর্ণ মার্কেটের ৩০টি দোকান ভাঙচুর ও মালামাল লুট

ভেঙ্গে দেয়া দোকানপাট - ছবি : নয়া দিগন্ত

ময়মনসিংহের কেন্দ্রীয় কারাগারের বন্দী থাকাবস্থায় ত্রিশাল উপজেলার আমিরাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান ভুট্টোর দখলীয় বিরোধপূণ মার্কেটের ৩০টি দোকান গভীর রাতে বুলডোজার দিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করার ঘটনা ঘটেছে।

গত শুক্র ও শনিবার মধ্যরাতে ইতালী প্রবাসী মোখলেছুর রহমানের লোকজন এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।

এসময় কয়েক কোটি টাকার মালপত্র লুট করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন মার্কেটের ভাড়াটিয়া ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয়রা জানান, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের সাইনবোর্ড এলাকায় একটি মার্কেটের জমি নিয়ে আমিরাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ভুট্টোর সাথে প্রতিবেশি ইতালী প্রবাসী মোখলেছুর রহমানসহ কয়েকজনের বিরোধ চলছে। সম্প্রতি বিরোধপূর্ণ জমিতে কারো অনাধিকার হস্তক্ষেপ বন্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন আদালত। উক্ত নিষেধাজ্ঞা জারির পাঁচ দিনের মাথায় শুক্রবার গভীর রাতে বুলডোজার দিয়ে মার্কেটের ভবনগুলো গুঁড়িয়ে দিয়ে দখল করে নেয় মোখলেছুর রহমান ও তার সহযোগীরা। এ সময় মার্কেটের ৩০টি দোকান ভাঙচুর ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায় তারা।

ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী শহিদ মিয়া জানান, তার দোকানের প্রায় ২০ লাখ টাকার মালামাল লুট করা হয়েছে।

জমির মালিকানা দাবি করে মোখলেছুর রহমান বলেন, ওই জমির প্রকৃত মালিক তিনি ও তার সহযোগীরা। ইউপি চেয়ারম্যান অন্যায়ভাবে জমি দখল করে রেখেছিলেন।

প্রশাসনের সাথে কথা বলে তারা জমি দখলে নিয়েছেন বলেও দাবি করেন তিনি।

ত্রিশাল থানার ওসি আজিজুর রহমান জানান, গত ২১ আগস্ট চাঁদাবাজির দু’টি মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ভুট্টোকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হলে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়। এখনো তিনি কারাগারে রয়েছেন। তবে মার্কেট দখলের ব্যাপারে থানায় কেউ কোনো অভিযোগ করেননি বলেও জানান তিনি।


আরো সংবাদ