২৪ অক্টোবর ২০১৯
প্রতিপক্ষের অভিযোগে তিন মাস পর

গৌরীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত

-

প্রতিপক্ষ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় নতুন কমিটি ঘোষণার তিন মাস পর ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করেছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

গতকাল শনিবার বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক চিঠি দিয়ে জেলা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিতের ঘোষণা দেয়া হয়।

এদিকে, উপজেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির উপর স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে শনিবার বিকেলেই গৌরীপুর পৌর শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেন ছাত্রলীগের স্থানীয় নেতা-কর্মীরা। এ নিয়ে স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় সুত্র জানায়, গত ৯ জুলাই উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পদে আল মুক্তাদির ও সাধারণ সম্পাদক পদে ইমতিয়াজ সুলতান জনি, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি পদে আল হোসেইন ও সাধারণ সম্পাদক পদে মোফাজ্জল হোসেনকে মনোনীত করে ছাত্রলীগের দুটি শাখার কমিটি ঘোষণা করে জেলা ছাত্রলীগ।

কিন্তু কমিটি গঠনের পরপরই ক্ষুব্ধ হয় ছাত্রলীগের বিদায়ী কমিটি ও পদবঞ্চিতরা। তারা অভিযোগ তুলেন ছাত্রলীগের নতুন দুটি শাখার কমিটিতে বিবাহিত, বয়সোর্ধ্ব, হত্যা মামলার আসামি ও বহিরাগতদের কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

ওই অভিযোগেই গত জুলাই মাসে দুটি কমিটি বাতিলের দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে বিক্ষোভ মিছিলসহ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে বেশ কয়েকদিন।

আন্দোলনকারীদের একজন সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, নতুন কমিটির বিরুদ্ধে সকল ধরনের তথ্য-প্রমাণ কেন্দ্রীয় কমিটিতে দাখিল করা হয়। পরে যাচাই-বাচাই ও তদন্ত করে গতকাল শনিবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করা হয়। এখানে কোনো ধরনের মিথ্যার আশ্রয় নেয়া হয়নি।

উপজেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সভাপতি আল মুক্তাদির কমিটি স্থগিতের সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ঊর্ধ্বতন নেতারা গৌরীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত ঘোষণা করেছেন। তাই শনিবার পূর্বনির্ধারিত উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের ছাত্রলীগের কর্মী সমাবেশ স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।


আরো সংবাদ