Naya Diganta

পাটুরিয়া ও আরিচায় ফেরি-লঞ্চে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভীড়

পাটুরিয়া ও আরিচায় ফেরি-লঞ্চে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভীড়

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাটে ঈদে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভীড় থাকলেও ফেরিঘাট এলাকা যানজটমুক্ত। ঈদের ছুটির শুরু থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যানবাহন ধীরগতিতে চলাচল করায় মহাসড়ক জুড়ে যানজট যেন স্থায়ীরূপ নিয়েছে। মহাসড়কে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে না থাকায় সৃষ্ট যানজটে আটকে পড়া যাত্রীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। পরিবহনগুলোতেও যাত্রীদের গুণতে হচ্ছে অতিরিক্ত অর্থ। এদিকে, পাটুরিয়া ফেরিঘাটের বাইপাস রুটে ছোট যানবাহন বিশেষকরে মাইক্রো ও প্রাইভেটকারের দীর্ঘ সারি দেখা গেছে।

পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাট এলাকায় শনিবার সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, ফেরি-লঞ্চ ঘাটের তেমন সমস্যা না থাকলেও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী রুটে ফেরি চলাচলে ব্যহত হওয়ায় পাটুরিয়া রুটে অতিরিক্ত যানবাহন ও যাত্রীর বাড়তি চাপ বেড়েছে। মহাসড়কে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে না থাকায় যাত্রীরা পথিমধ্যে নেমে দীর্ঘ পথ পায়ে হেঁটে আরিচা ও পাটুরিয়া ঘাট হয়ে লঞ্চ-ফেরিতে উঠে গন্তব্যে যাচ্ছে। পাটুরিয়ায় লঞ্চের পাশাপাশি যাত্রীরা ফেরিতে পার হলেও তাদের ভোগান্তি যেন কোন অংশেই কম নয়। পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে লঞ্চে নির্ধারিত হারে যাত্রী প্রতি ভাড়া আদায় করা হলেও অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে লঞ্চ চলাচল করায় সাধারণ যাত্রীরা দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন।

একইভাবে আরিচা-কাজিরহাট রুটে লঞ্চে বাড়তি ভাড়া আদায়ের পাশাপাশি ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহনের দৃশ্য অহরহ দেখা মিললেও ঘাটে প্রশাসনের দায়িত্বরতদের দেখা গেছে উদাসীন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরিচায় দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রশাসনের এক কর্মকর্তা নয়া দিগন্ত অনলাইনকে বলেন, আরিচা ও পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় অনেক ‘অনিয়ম’ নিয়মে পরিণত হয়েছে। বিধায় যাত্রী হয়রানি ও অনিয়মের বিষয়গুলো এড়িয়ে চলতে হচ্ছে।

ফেরি সেক্টর বিআইডব্লিউটিসি’র আরিচা অঞ্চলের ডিজিএম আজমল হোসেন জানিয়েছেন, ঈদ উপলক্ষ্যে এ রুটের বহরে ফেরির সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। যানবাহনের পাশাপশি যাত্রীরা নিরাপদ ও স্বাচ্ছন্দে পার হলেও মহাসড়কে যানবাহনের জটিলতায় যাত্রী দুর্ভোগ বেড়েছে। কাঁঠালবাড়ী নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বিঘ্ন ঘটায় এ রুটে যানবাহন ও যাত্রীর চাপ আরোও বৃদ্ধি পাবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

পাটুরিয়া ঘাট নৌ-পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুল্লাহ আরেফ জানান, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে প্রতি ঘণ্টায় লঞ্চে দু’হাজার ও ফেরিতে প্রায় ৫ হাজার যাত্রী এবং ফেরিতে প্রতি ঘণ্টায় বিভিন্ন ধরণের আড়াইশ যানবাহন পার হচ্ছে। এ রুটের লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া ও যাত্রী বহনের ক্ষেত্রে বিশেষ নজরদারি করা হচ্ছে।

মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম জানিয়েছেন, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যানবাহন নিয়ন্ত্রণ ও ঘাট এলাকায় উদ্ভূদ পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশের ৫শতাধিক সদস্যের পাশাপাশি রোভার স্কাউট কাজ করছে।

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস জানিয়েছেন, এ রুটে ঘরমুখো যাত্রীদের ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসনের পক্ষ্য থেকে সর্বাত্মক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এতে কোন বাধা আসলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।