Naya Diganta

ইনিংস ব্যবধানে জিতল বরিশাল

কামরুল ইসলাম রাব্বির বোলিং তান্ডবে ইনিংস ব্যবধানে হারের চোখ রাঙানি গতকালই পেয়েছিল সিলেট বিভাগ। গতকাল শেষ দিনে সেই কাজটা আরো তাড়াতাড়ি করেছেন তানভীর ইসলাম ও মনির হোসেনরা। তাতেই ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগে সিলেটের বিপক্ষে ইনিংস ব্যবধানে জয় পেয়েছে বরিশাল বিভাগ।
শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে প্রথম ইনিংসে ৮৬ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল সিলেট বিভাগ। জবাবে প্রথম ইনিংসে ৮ উইকেট ২৩১ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে বরিশাল বিভাগ। ১৪৫ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নেমে ফের ব্যাটিং বিপর্যয়ের শিকার অলক কাপালির দল। শেষ দিনে সিলেট ১৩২ রানে গুটিয়ে গেলে ইনিংস ও ১৩ রানে জয়ের স্বাদ পায় বরিশাল।
২ উইকেটে ২৭ রান নিয়ে ম্যাচ বাঁচানোর লড়াই শুরু করে সিলেট। দলটির হয়ে শুধু প্রতিরোধ গড়তে দেখা গেছে জাকের আলীকে। সতীর্থদের আসা যাওয়ার মিছিল দেখতে দেখতে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে দলের হয়ে ১১৪ বলে ৪৫ রানের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস খেলেন দলীয় এ অধিনায়ক।
দিনের শুরুতে এনামুল হক জুনিয়রকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে বিদায় করেন তানভীর। এরপর প্রতিরোধের চেষ্টায় থাকা ইমতিয়াজ হোসেনকেও বিদায় করেন তানভীর। তার দাপটে রানের খাতা খোলাই হয়নি শাহানুর ও রেজাউর রহমানের। তানভীরের সাথে সমান তালে উইকেট নেন আরেক স্পিনার মনির হোসেন। অধিনায়ক অলক কাপালীকে ফিরিয়ে শিকার শুরু মনিরের। পরে ইমরান আলী ও রুহেল মিয়াকে শূন্য রানে ফিরিয়ে দলকে এনে দেন দারুণ জয়। সিলেট শেষ ৫ উইকেট হারায় মাত্র ১১ রানে। স্পিনারদের ঘূর্ণিতে রানের খাতা খোলা হয়নি শেষ চারজনের। বল হাতে ২৯ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন বরিশালের তানভীর। মনির ২১ রানে নেন ৩ উইকেট। ২টি উইকেট নেন নুরুজ্জামান। আর প্রথম ইনিংসে ২৪ রানে ৬ উইকেট পাওয়া কামরুল ইসলাম রাব্বি হন ম্যাচসেরা।