২৪ আগস্ট ২০১৯

আর্জেন্টিনায় চীনা মহাকাশ কেন্দ্র : উদ্বেগে আমেরিকা

প্যাতাগোনিয়ার মহাকাশ কেন্দ্র - সংগৃহীত

আর্জেন্টিনাতে অবস্থিত চীনের পরিচালিত মহাকাশ কেন্দ্র হুমকি হয়ে দেখা দিতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী।

সম্প্রতি চাঁদের অন্ধকার অঞ্চলে অনুসন্ধান যান নামানোর কাজে এ কেন্দ্রকে ব্যবহার করেছে বেইজিং। কিন্তু এ কেন্দ্রকে আমেরিকা এবং তার মিত্রদের উপগ্রহ ভূপাতিত করার কাজে ব্যবহার করা হতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন মার্কিন শীর্ষ স্থানীয় সামরিক কর্মকর্তারা।

মার্কিন কংগ্রেসে বিস্তৃত বিষয়ে দেয়া সাক্ষ্যে এ আশংকা ব্যক্ত করেন মার্কিন সাদার্ন কমান্ডের কমান্ডার অ্যাডমিরাল ক্রেইগ ফলার। সম্প্রতি তার নিয়োগকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

চীনা এ মহাকাশ কেন্দ্রটি প্যাতাগোনিয়ার মরুভূমিতে অবস্থিত। অ্যাডমিরাল ফলার সুনির্দিষ্টভাবে এ কেন্দ্রকে আমেরিকার জন্য হুমকি বলে দাবি করেছেন। ২০০ হেক্টর এলাকাজুড়ে অবস্থিত কেন্দ্রে ১৬তলা অ্যান্টেনা স্থাপন করা হয়েছে। অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কেন্দ্রের চারদিকে ৮- ফুট উঁচু কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে ঘিরে দেয়া হয়েছে।

২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে কেন্দ্রটি চালু করা হয় বলে খবর দিয়েছিল চীনা সংবাদ মাধ্যম। চলতি মাসে চাঁদের অন্ধকার অঞ্চলে মহাকাশ যান নামানোর কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এটি।

এদিকে, মহাকাশ কেন্দ্রকে সামরিক কাজে ব্যবহারের কথা অস্বীকার করেছে চীন। চীন বলেছে, একে বেসামরিক মহাকাশ পর্যবেক্ষণ এবং অনুসন্ধানের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কেন্দ্রের দ্বার জনগণ এবং সংবাদ মাধ্যমের জন্য অবারিত। অবশ্য, যারা এ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছেন তাদের অসৎ-উদ্দেশ্য রয়েছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

এদিকে, চীনের মহাকাশ কর্মসূচি নিয়ন্ত্রণ করে দেশটির সামরিক বাহিনী গণমুক্তি ফৌজ বা পিএলএ। প্যাতাগোনিয়া কেন্দ্রটি পরিচালনা করছে চীনের উপগ্রহ উৎক্ষেপণ এবং নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বা সিএলটিসি। সিএলটিসি সরাসরি পিএলএ'র স্ট্র্যাটেজিক সাপোর্ট ফোর্সের কাছে প্রতিবেদন পেশ করে।
সূত্র : পার্স টুডে

 


আরো সংবাদ