২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

এল পাসো হামলাকারীর লক্ষ্য ছিল ‘মেক্সিকানরা’

-

টেক্সাসের এল পাসো শহরে ওয়ালমার্টের শোরুমে হামলাকারী তরুণ মেক্সিকো থেকে আসা অভিবাসীদের হত্যা করতেই গুলি চালিয়েছিলেন বলে স্বীকার করেছেন। গত শুক্রবার এল পাসো পুলিশের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘অভিযুক্ত ব্যক্তি মেক্সিকানদের লক্ষ্য করেই গুলি চালানো শুরু করেছিলেন বলে স্বীকার করেছেন।’ গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের সীমান্তবর্তী শহর এল পাসোতে ২১ বছরের তরুণ প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস একে-৪৭ রাইফেল হাতে ওয়ালমার্টের শোরুমে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি করে ২২ জনকে হত্যা করে। ব্যস্ত সময়ে ক্রেতাভর্তি ওই শোরুমে হামলায় আরো অন্তত ২৪ জন আহত হন। পরে পুলিশ সন্দেহভাজন হামলাকারী থহিসেবে ক্রুসিয়াসকে গ্রেফতার করে। পুলিশ ক্রুসিয়াসকে গাড়ি থামাতে বললে সে ‘আমিই হামলাকারী’ বলে চিৎকার করতে করতে নেমে আসে বলে আগেই জানিয়েছিলেন গোয়েন্দা কর্মকর্তা আড্রিয়ান গার্সিয়া। ক্রুসিয়াসের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
গত ৩ অগাস্ট ওই হামলার পর টেক্সাস পুলিশ যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অনলাইন যোগাযোগ মাধ্যম ‘৮চেন’ এ অভিবাসনবিরোধী একটি ঘোষণাপত্র পায়। গ্রেফতার তরুণ ওই মেনিফেস্টো পোস্ট করেছেন বলে জানায় পুলিশ। এতে টেক্সাসে ‘হিস্পানিক জনগোষ্ঠীর আধিক্যের কারণে’ হামলা চালানো হয়েছে বলা হয়। গত মার্চে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে গুলি করে ৫১ জনকে হত্যার ঘটনাকে সমর্থন দেয়া হয়েছে এতে। ওয়ালমার্টে নিহত বেশির ভাগ নামই হিস্পানিক।

 


আরো সংবাদ