১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ব্রেক্সিটের পর মার্কিন ব্রিটিশ বাণিজ্যচুক্তির আশা ট্রাম্পের

-

ব্রেক্সিট কার্যকরের পর যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যে বড় ধরনের চুক্তির সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, এটি হবে খুব বড় একটি বাণিজ্যচুক্তি, আমাদের আগের যেকোনো চুক্তির চেয়ে বড়।
রোববার ফ্রান্সে জি সেভেন সম্মেলনের ফাঁকে ব্রিটেনের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সাথে সকালের নাশতা করার পর সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।
সাংবাদিকেরা ট্রাম্পের কাছে জানতে চান, ব্রেক্সিট নিয়ে তার কোনো পরামর্শ আছে কিনা! উত্তরে তিনি বলেন, ব্রেক্সিটের জন্য ব্রিটেনের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনই যথার্থ ব্যক্তি। তার কোনো পরামর্শের দরকার নেই। দুই নেতার সাক্ষাতের আগে বরিস জনসন জানান, ব্রেক্সিট কার্যকরের পর ব্রিটিশ পণ্যের জন্য মার্কিন বাজার যেন উন্মুক্ত করে দেয়া হয় সেজন্য ট্রাম্পকে চাপ দেবেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে ক্রমবর্ধমান তিক্ত বাণিজ্যযুদ্ধ সম্পর্কিত বিষয় নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন জনসন এবং বিষয়টি নিয়ে ট্রাম্পের সাথে কথা বলবেন বলেও জানান তিনি।
নাশতা শেষে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময় এই দুই নেতার সাথে উপদেষ্টা ও কর্মকর্তারা ছিলেন। বরিস জনসন ও ট্রাম্পের নিজের একটি হাস্যোজ্জ্বল ছবি পোস্ট করে রোববার ট্রাম্প তার অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘আমরা খুব ভালো একটি বৈঠক শেষ করেছি।’
জনসন নিশ্চিত করেছেন যে তিনি যেকোনো বাণিজ্যচুক্তির অংশ হিসেবে মার্কিন সংস্থাগুলোতে ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের দ্বার উন্মুক্ত করার বিষয়ে তার বিরোধিতা অব্যাহত রাখবেন এবং চুক্তি করার জন্য ব্রিটেনে পশুর কল্যাণের মান হ্রাস করে মার্কিন স্তরে নামিয়ে আনার সাথেও একমত নন জনসন।

 


আরো সংবাদ