১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

৯/১১ স্মরণে বিক্ষোভে বিরতি হংকংয়ের আন্দোলনকারীদের

-

দেড় যুগ আগে, ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলার বার্ষিকীর দিনে বিক্ষোভে বিরতি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে হংকংয়ের আন্দোলনকারীরা। টানা তিন মাস ধরে বেইজিংঘনিষ্ঠ প্রশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া এ বিক্ষোভকারীরা চীন নিয়ন্ত্রিত শহরটিতে ‘ব্যাপক সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের’ পরিকল্পনার অভিযোগও অস্বীকার করেছে।
বিচারের জন্য বাসিন্দাদের চীনের মূল ভূখণ্ডে পাঠানোর সুযোগ রেখে আইনের সংশোধনী সংক্রান্ত একটি বিল নিয়ে জুন থেকে শুরু হওয়া তুমুল বিক্ষোভ ও সহিংসতা এরই মধ্যে হংকংয়ের অর্থনৈতিক কর্মযজ্ঞকে অনেকখানিই ধসিয়ে দিয়েছে। ২২ বছর আগে ব্রিটেনের হস্তান্তর করা এ শহরটির কারণেই চীনকে ‘এক দেশ দুই ব্যবস্থা’ চালাতে হচ্ছে।
আন্দোলনের মুখে হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি লাম বিতর্কিত ওই প্রত্যর্পণ বিল প্রত্যাহার করে নিলেও বিক্ষোভকারীরা এখন শহরটিতে আরো গণতন্ত্র ও স্বায়ত্তশাসন চাইছেন। মঙ্গলবার হংকংয়ের একটি স্টেডিয়ামে ইরানের সাথে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের খেলায় জাতীয় সঙ্গীত চলাকালে অনেককে সেøাগান দিতেও দেখা যায়।
বেইজিং শুরু থেকেই এ বিক্ষোভের নিন্দা জানিয়ে আসছে। বিক্ষোভে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করা হয়নি জানিয়ে তারা উল্টো যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও পশ্চিমা দেশগুলোকে হংকংয়ের বিক্ষোভ উসকে দেয়ার দায়ে অভিযুক্ত করছে। চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সংবাদমাধ্যম চায়না ডেইলির হংকং সংস্করণের ফেসবুক পেজে নিউ ইয়র্কের টুইন টাওয়ারে ৯/১১ হামলার একটি ছবি দিয়ে অভিযোগ করা হয়েছে, ‘সরকারবিরোধী উন্মত্তরা ১১ সেপ্টেম্বর গ্যাস পাইপ উড়িয়ে দেয়াসহ ব্যাপক সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের পরিকল্পনা করছে।’ বিক্ষোভকারীদের অনেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ২৪ বছর বয়সী মাইকেল বলেছেন, ‘এটা যে মিথ্যা সংবাদ তা বুঝতে আমাদের এমনকি সংবাদটি খতিয়ে দেখারও প্রয়োজন নেই। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম তাদের দায়িত্বশীলতা নিয়ে মোটেই ভাবে না।’
যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলার বার্ষিকীতে বুধবার সব ধরনের প্রতিবাদ কর্মসূচি বন্ধ রাখারও ঘোষণা দেয়া হয়। বিবৃতিতে বিক্ষোভকারীরা বলেছে, ‘সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সংহতি হিসেবে, গান গাওয়া ও সেøাগান দেয়া ছাড়া ১১ সেপ্টেম্বর হংকংয়ে সব ধরনের বিক্ষোভ বন্ধ থাকবে।’ আন্দোলনরতদের একাংশ আবার চীনা গণমাধ্যমের এমন অবস্থানে উদ্বিগ্ন।

 


আরো সংবাদ