১৭ নভেম্বর ২০১৯

সিরিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পর সেনা সরিয়ে নিচ্ছে ব্রিটেন সিরিয়া থেকে চতুর্থ দফায় সেনা প্রত্যাহার যুক্তরাষ্ট্রের; এসব সেনার পরবর্তী গন্তব্য ইরাক

সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনাদের নিয়ে ইরাক সীমান্ত অতিক্রম করছে সাঁজোয়া যানগুলো : এএফপি -

সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর একই পথ অনুসরণ করেছে ব্রিটেন। ব্রিটিশ স্পেশাল ফোর্সকে সিরিয়া থেকে বাধ্যতামূলকভাবে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ট্রাম্পের ঘোষণার পর সিরিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্র সেনা প্রত্যাহার শুরু করলে ব্রিটিশ সেনারা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে এবং ব্রিটিশ সরকার তাদের স্পেশাল ফোর্স সিরিয়া থেকে প্রত্যাহার করে নেয়।
ব্রিটিশ পত্রিকা ‘ডেইলি ইন্ডিপেন্ডেন্ট’ গত ১৭ অক্টোবর জানিয়েছে, ব্রিটেনের সাবেক শীর্ষ পর্যায়ের একদল সেনা কর্মকর্তা সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের নিন্দা জানান। এসব সেনা কর্মকর্তা মধ্যপ্রাচ্য এবং আফগানিস্তানে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন। দ্য টাইমস পত্রিকার প্রতিরক্ষা বিষয়ক প্রতিবেদক লুসি ফিশার বলেন, সিরিযায় বর্তমানে ১০০-এর কম সেনা রয়েছে। চলতি মাসের প্রথম দিকে তিনি এক টুইটার বার্তায় বলেছিলেন, সিরিয়ায় মার্কিন সেনাদের রসদ, পরিবহন ও অবকাঠামোর নির্ভর করে ব্রিটিশ সেনাদের ওপর।
রোববার মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার ঘোষণা দেন যে, সিরিয়া থেকে ১০০০ সেনা প্রত্যাহার করে ইরাকের পশ্চিমাঞ্চলে মোতায়েন করা হবে। রোববার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। এ নিয়ে সিরিয়া থেকে ৪র্থ দফায় সেনা প্রত্যাহার করল যুক্তরাষ্ট্রে। এর আগে চলতি মাসের প্রথম দিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছিলেন, সিরিয়া-তুরস্ক সীমান্ত থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হবে। জানা গেছে, গতকালই মার্কিন সৈন্যরা ইরাকের সাহিলা সীমান্ত দিয়ে দেশটিতে প্রবেশ করেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা এ খবর জানিয়েছেন। তা ছাড়া রয়টার্সের ভিডিওতে দেখা যায়, মার্কিন সেনাদের বহনকারী সাঁজোয়া যানগুলো ইরাকে প্রবেশ করছে। রয়টার্সের একজন ক্যামেরাম্যান এমন শতাধিক যানকে ইরাকের সীমান্ত অতিক্রম করতে দেখেছেন।
রোববার এসপারের সাথে আফগানিস্তান সফরে আসা সাংবাদিকরা তাকে প্রশ্ন করেন, সিরিয়া থেকে যে মার্কিন সৈন্যদের সরিয়ে নেয়া হচ্ছে, তাদের পরবর্তী গন্তব্য কোথায়। তখন তিনি বলেন, ‘নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমাদের সৈন্যদের সিরিয়া থেকে সরিয়ে ইরাকে নিয়ে যাওয়া হবে এবং ইসলামিক স্টেট (আইএস) গোষ্ঠীর অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সেখানে অভিযান চালানো হবে।’ অবশ্য ইরাক থেকে সিরীয় সীমান্তে অভিযান চলবে কি না সেটা এসপার তার বক্তব্যে স্পষ্ট করেননি।
অথচ, সিরিয়া থেকে নিজেদের সব সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের পর গত বুধবারই ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘এখন তাদের (মার্কিন সেনাদের) বাড়ি ফেরার সময়।’ কিন্তু প্রতিরক্ষা সচিবের নতুন সিদ্ধান্তের ফলে এটা স্পষ্ট যে, ট্রাম্পের ঘোষণা সত্য হতে যাচ্ছে না।
এর আগে শুক্রবার সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে ‘অপারেশন পিস স্প্রিং’ নামে চলা তুরস্কের অভিযান বন্ধে পাঁচ দিনব্যাপী অস্ত্রবিরতির মার্কিন প্রস্তাবে রাজি হয় তুরস্ক। এর মধ্যেও মার্কিন সমর্থিত কুর্দি যোদ্ধাদের সাথে বেশ কয়েকটি বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে তুর্কি সেনাদের। রোববার ওই অঞ্চল থেকে এক হাজার মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তও আগেই হয়েছিল। ট্রাম্প তখন সেই সেনাদের যুক্তরাষ্ট্রে ফিরিয়ে আনার আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই হাজারখানেক মার্কিন সেনা যাচ্ছেন ইরাক নিয়ন্ত্রণের বর্ধিত মিশনে।
সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নেয়ার পর গত ৯ অক্টোবর সেখানে অভিযান শুরু করেছে তুর্কি বাহিনী। সীমান্ত থেকে কুর্দি বাহিনীকে হটাতেই সামরিক অভিযান চালাচ্ছে তুরস্ক। অন্তত ৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত কুর্দিদের হটিয়ে ‘নিরাপদ অঞ্চল’ তৈরি করতে চায় তুর্কি বাহিনী। তুরস্কে থাকা ৩০ লাখের বেশি সিরীয় শরণার্থীকে ওই অঞ্চলে পুনর্বাসিত করার পরিকল্পনার কথাও বলেছে তুর্কি কর্তৃপক্ষ। তবে সমালোচকরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে, এর ফলে ওই অঞ্চলে বসবাসরত কুর্দিরা জাতিগত নিধনের শিকার হতে পারে। সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটকে হটাতে যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ মিত্র ছিল কুর্দি বাহিনী। কিন্তু কুর্দি বাহিনীকে সন্ত্রাসী হিসেবে উল্লেখ করে থাকে তুরস্ক।


আরো সংবাদ

অল্পদিনেই গাজীপুরকে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত ঘোষণা করতে চাই : আইজিপি জমি লিখে না দেয়ায় বৃদ্ধা মাকে পিটিয়ে আহত রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কাজ করছে চীন : রাষ্ট্রদূত বগুড়ায় ৬ রুটে অঘোষিত বাস ধর্মঘট গফরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মায়ের কোলেই শিশু নিহত পেঁয়াজের দাম নিয়ে সরকার পরিহাস করছে : জামায়াত লক্ষ্মীছড়িতে সেনাবাহিনীর ২৬ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন প্রতিপক্ষকে ২৭ গোলে পরাজিত করায় বরখাস্ত হলেন কোচ পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে হত্যা : স্বামীর মৃত্যুদণ্ড সরকার দেশে স্বৈরশাসন চালাচ্ছে : মির্জা ফখরুল বাবরি মসজিদ : রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন করবে দুটি সংগঠন

সকল