০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
অভিযোগ পরিবেশবাদীদের

নদী রক্ষায় উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশ বাস্তবে মানা হচ্ছে না

-

পরিবেশবাদীরা অভিযোগ করেছেন, দেশের নদী রক্ষায় উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশ বাস্তব ক্ষেত্রে মানা হচ্ছে না। তারা বলেন, নদী রক্ষায় স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী আন্তরিক হলেও অনেক ক্ষেত্রে প্রশাসন যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

বাংলাদেশের নদী রক্ষায় নিবেদিত সামাজিক সংগঠনসমূহের যৌথ উদ্যোগে আজ বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন পরিবেশবাদীরা।

ঢাকায় ‘বিশ্ব নদী দিবস ২০১৯ এর জাতীয় প্রতিপাদ্য ও অনুষ্ঠান প্রস্তুতি বিষয়ে’ এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এতে মূল বক্তব্য রাখেন বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন পরিষদ বাংলাদেশের আহ্বায়ক ডা: মো: আব্দুল মতিন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন পরিষদের সদস্য সচিব শেখ রোকন। এতে উপস্থিত ছিলেন স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আহম্মদ কামরুজ্জামান মজুমদার, বুড়িগঙ্গা বাঁচাও আন্দোলনের সমন্বয়ক মিহির বিশ্বাস, বিপিআই-এর নির্বাহী পরিচালক শরীফ জামিল, রিভারাইন পিপলের পরিচালক মোহাম্মদ এজাজ প্রমুখ।

ডা: মো: আব্দুল মতিন বলেন, দেশের নদীসমূহ নানামুখী অত্যাচারে চরম বিপর্যয়ের শিকার। বস্তুত নদীর জন্য এদেশে কেউ নেই। বরং নদী নিয়ে ব্যবসা করা, নদীর বুক থেকে নির্বিচার ও অবারিত বালু তোলা, নদী দখল ও হত্যা করে তা থেকে ফায়দা লুটা, মৃত নদীর ওপর সোৎসাহে বাড়িঘর নির্মাণ, অপ্রয়োজনীয়-বিজ্ঞানবিরোধী-নদীর জন্য ক্ষতিকর প্রকল্প বানিয়ে তার সুবিধা ভোগ করা নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তারা বলেন, নদী যদি বিনষ্ট হয় তা হলে আমরা ধ্বংসে দিকে ধাবিত হব।

এদিকে, দেশের নদী রক্ষা ও সচেতনতা বাড়াতে ২১ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে নয়টায় বাহাদুর শাহ পার্কের সামনে পরিবেশবাদী সংগঠনগুলোর পক্ষে নদীর জন্য পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। পদযাত্রার আগে গণজমায়েত করা হবে। এরপর ১১টায় পদযাত্রা শুরু করে বুড়িগঙ্গা নদীর পাড়ে সদরঘাট টার্মিনালে গিয়ে শেষ হবে।


আরো সংবাদ

সকল