১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

'মরে যেতে চেয়েছিলাম'

হাসপাতালের বিছানায় ডেনি - মিরর

ডেনি মিলওয়ার্ড। পেশায় ইঞ্জিনিয়ার। ইংল্যান্ডের ওয়ালিংটন শহরে তার বসবাস। বছর কয়েক আগে এই তরুণকে দেখলে যে কেউ কপাল কুঁচকে তাকাতো। কারণ তার অস্বাভাবিক পেট! তার পেট দেখলে মনে হতো 'তিনি প্রেগনেন্ট'। আসলে বিরল এক রোগে ভুগছিলেন তিনি।

২০১৬ সালের কথা। হঠাৎ করেই পেট ফুলে যেতে শুরু করলো ডেনির। দেখতে দেখতে তা অস্বাভাবিক আকার ধারণ করলো। তাকে দেখতে 'গর্ভবতী'র মতো লাগতো।

ডেনিকে দেখতে 'গর্ভবতী'র মতো লাগতো

 

এই বিব্রত পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে তিনি ডাক্তারের শরণাপন্ন হলেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানতে পারলেন, তিনি বিরল একটি রোগে ভুগছেন। রোগটি হলো বাড কাইরি। এ রোগে লিভারের চারপাশে রক্ত জমাট বেঁধে যায়।

ডাক্তার জানালেন তিনি বড়জোর দুই বছর বাঁচবেন। যদি লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করেন তবে তিনি বাঁচতে পারেন।

কিন্তু তাকে লিভার দান করবেন কে?

মাসের পর মাস অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করেছেন ডেনি। এক সময় হার মেনে নিয়েছিলেন তিনি। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে মাকে বলেছিলেন, 'মা, আমার আর বাঁচতে ইচ্ছে করছে না। এই কষ্ট আর সহ্য করতে পারছি না।'

লিভার ট্রান্সপ্লান্টের পর

 

অবশেষে এক দয়ালু ব্যক্তি ডেনিকে লিভার দান করেন। অপারেশনের পর সুস্থ জীবন-যাপন করছেন তিনি। বিয়ে করেছেন। জমজ সন্তানের বাবা তিনি।

তবে সেই দয়ালু ব্যক্তির পরিচয় জানেন না ডেনি। কিন্তু তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

-মিরর


আরো সংবাদ