১৮ নভেম্বর ২০১৯

হাসতে গিয়ে হা-মুখ!

চিকিৎসককে দেখে তরুণীটি নানা অঙ্গ-ভঙ্গি করে তার চোয়াল ঠিক করে দেয়ার অনুরোধ জানাতে থাকেন - সংগৃহীত

হাসি পেলে কী আর হুশ থাকে? বিশেষ করে যারা হাসিমুখো মানুষ, তাদের তো কথাই নেই। খিলখিলাতে গিয়ে হেলেদুলে পড়েই যায়। আবার কেউ কেউ তো পেটে হাত দিয়ে বসে যায় আর সহ্য করতে না পেরে। কিন্তু হাসতে গিয়ে চীনের এক তরুণীর যে হাল হয়েছে, তা শুনলে হাসার আগে সতর্ক হবেন অবশ্যই।

হয়েছিল কী?

শুনুন পুরো ঘটনা। ট্রেনের মধ্যে জোরে জোরে হাসছিলেন ওই তরুণী। কিন্তু ঠিক কী কারণে এতো হাসি পেয়েছিল তার- তা জানা যাযনি। তবে প্রক্ষত্যদর্শীরা জানান, বেশ কয়েক মিনিট ধরে একইভাবে হাসতে থাকেন তরুণীটি। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি।

এক পর্যায়ে হাসতে হাসতে চোয়াল সরে যায় তার। কোনোভাবেই আর মুখ বন্ধ করতে পারছিলেন না তিনি। আর না পারছিলেন কথা বলতে, না পারছিলেন কিছু খেতে। মুখ-হা করেই বসে থাকতে হয় তাকে।

সৌভাগ্যক্রমে ওই ট্রেনেই ছিলেন চিকিৎসক লুও ওয়েনশেং। খবর পেয়েই ছুটে আসেন তিনি। তাকে দেখে তরুণীটি নানা অঙ্গ-ভঙ্গি করে তার চোয়াল ঠিক করে দেয়ার অনুরোধ জানাতে থাকেন। কিন্তু তার উদ্বেগ বাড়িয়ে আর অপেক্ষা দীর্ঘায়িত করে লুও জানান, এ ব্যাপারে তিনি পারদর্শী নন। তাই তিনি যে চোয়াল সোজা করে দিতে পারবেন এমন কোনো গ্যারান্টি নেই। কিন্তু যুবতীর লাগাতার অনুরোধে শেষমেশ চোয়াল সোজা করতে সফল হন চিকিৎসক।

লুও বলেন, “এসে দেখি যুবতী কথাও বলতে পারছেন না, মুখ বন্ধও হচ্ছে না। প্রথমে দেখে মনে হয়েছিল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু রক্তচাপ পরীক্ষা করে দেখি তেমন কিছু হয়নি।”

লুও তরুণীর হা-মুখ বন্ধ করে দিলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে তরুণীর হা-মুখের এই ছবি।

তবে এই প্রথম এমনটি হয়নি, এর আগে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় বমি করার সময়ও তরুণীটির নাকি চোয়াল সরে গিয়েছিল।


আরো সংবাদ