২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নীতিমালা

বৃষ্টির দিনে বাইরে যেতে নিশ্চয়ই পানিরোধী স্মার্টফোনের কথা মনে হয়। কারণ, অনেক দামী স্মার্টফোন ভিজে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কিন্তু বাজারে এখন পানিরোধী (ওয়াটারপ্রুফ) ও পানি প্রতিরোধী (ওয়াটার রেজিস্ট্যান্ট) পাওয়া যায়। এসব অ্যান্ড্রয়েড ফোন পানিতে নামালে বা পানিতে পড়ে গেলে নষ্ট হয় না। এখনকার অনেক স্মার্টফোনে বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে ছবি তোলার সুবিধাও আছে। এখনকার অনেক স্মার্টফোন নির্মাতাই আইপি ৬৭ ও ৬৮ রেটিংয়ের ফোন তৈরি করছেন। এসব রেটিংপ্রাপ্ত ফোন পানির স্পর্শে নষ্ট হয় না। তবে অনেক ফোনের ক্ষেত্রে পানি প্রতিরোধী দাবি করা হলেও তা পানিতে নষ্ট হতে পারে। তাই ফোন কেনার আগে এ সম্পর্কে জেনে রাখা ভালো। আইপি ৬৭ ও ৬৮ কী? এ প্রসঙ্গে স্যামসাং বাংলাদেশর প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপক শাহরিয়ার হোসেন জানান, আইপি মানে ইনগ্রেস প্রটেকশন। ফোনের মধ্যে যেকোনো প্রটেকশন বা সুরক্ষার মাত্রা বোঝাতে এটি ব্যবহার করা হয়। প্রথম ডিজিট ৬ মানে সলিড অবজেক্ট বা ধুলোবালু বা সূক্ষ্ম পার্টকেল ঢোকার ক্ষেত্রে সুরক্ষার মাত্রা। এর সর্বোচ্চ মাত্রা ৬ পর্যন্ত। কোনো আইপি ৬ দেখালে তা ‘ডাস্ট টাইট’ বা ধুলোবালু সুরক্ষিত। এতে ডাস্ট ঢুকে তা নষ্ট করতে পারবে বা তাতে সুরক্ষা মাত্রা সর্বোচ্চ ব্যবহার করা হয়েছে। পরের ডিজিট পানি বা অ্যাসিড বাদে অন্য লিকুইড বা তরলের বিপরীতে প্রটেকশন বা সুরক্ষার মাত্রা কতটা শক্তিশালী তা বোঝায়। এটার সর্বোচ্চ মাত্রা ৯। আইপি ৬৯ হলে তাকে বলা হয় স্প্ল্যাশপ্রুফ। আর আইপিড ৬৮ মানে হচ্ছে দেড় মিটার পানির নিচে এ ফোন আধা ঘণ্টা টিকতে পারবে। হালকা ওয়েভ বা ঢেউ এটা সুরক্ষা দিতে পারে। ৬৭ সুরক্ষার মাত্রা হলে তা এক মিটার পানির নিচে সর্বোচ্চ আধা ঘণ্টা টিকতে পারে। এটি হালকা মৃদু ঢেউ নিতে পারবে। ৬৯ পুরো ঢেউ বা ওয়াশিং মেশিনেও কোনো ক্ষতি হয় না।


ফোন পানির স্পর্শে নষ্ট হয়

বৃষ্টির দিনে বাইরে যেতে নিশ্চয়ই পানিরোধী স্মার্টফোনের কথা মনে হয়। কারণ, অনেক দামী স্মার্টফোন ভিজে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কিন্তু বাজারে এখন পানিরোধী (ওয়াটারপ্রুফ) ও পানি প্রতিরোধী (ওয়াটার রেজিস্ট্যান্ট) পাওয়া যায়। এসব অ্যান্ড্রয়েড ফোন পানিতে নামালে বা পানিতে পড়ে গেলে নষ্ট হয় না। এখনকার অনেক স্মার্টফোনে বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে ছবি তোলার সুবিধাও আছে। এখনকার অনেক স্মার্টফোন নির্মাতাই আইপি ৬৭ ও ৬৮ রেটিংয়ের ফোন তৈরি করছেন। এসব রেটিংপ্রাপ্ত ফোন পানির স্পর্শে নষ্ট হয় না। তবে অনেক ফোনের ক্ষেত্রে পানি প্রতিরোধী দাবি করা হলেও তা পানিতে নষ্ট হতে পারে। তাই ফোন কেনার আগে এ সম্পর্কে জেনে রাখা ভালো। আইপি ৬৭ ও ৬৮ কী? এ প্রসঙ্গে স্যামসাং বাংলাদেশর প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপক শাহরিয়ার হোসেন জানান, আইপি মানে ইনগ্রেস প্রটেকশন। ফোনের মধ্যে যেকোনো প্রটেকশন বা সুরক্ষার মাত্রা বোঝাতে এটি ব্যবহার করা হয়। প্রথম ডিজিট ৬ মানে সলিড অবজেক্ট বা ধুলোবালু বা সূক্ষ্ম পার্টকেল ঢোকার ক্ষেত্রে সুরক্ষার মাত্রা। এর সর্বোচ্চ মাত্রা ৬ পর্যন্ত। কোনো আইপি ৬ দেখালে তা ‘ডাস্ট টাইট’ বা ধুলোবালু সুরক্ষিত। এতে ডাস্ট ঢুকে তা নষ্ট করতে পারবে বা তাতে সুরক্ষা মাত্রা সর্বোচ্চ ব্যবহার করা হয়েছে। পরের ডিজিট পানি বা অ্যাসিড বাদে অন্য লিকুইড বা তরলের বিপরীতে প্রটেকশন বা সুরক্ষার মাত্রা কতটা শক্তিশালী তা বোঝায়। এটার সর্বোচ্চ মাত্রা ৯। আইপি ৬৯ হলে তাকে বলা হয় স্প্ল্যাশপ্রুফ। আর আইপিড ৬৮ মানে হচ্ছে দেড় মিটার পানির নিচে এ ফোন আধা ঘণ্টা টিকতে পারবে। হালকা ওয়েভ বা ঢেউ এটা সুরক্ষা দিতে পারে। ৬৭ সুরক্ষার মাত্রা হলে তা এক মিটার পানির নিচে সর্বোচ্চ আধা ঘণ্টা টিকতে পারে। এটি হালকা মৃদু ঢেউ নিতে পারবে। ৬৯ পুরো ঢেউ বা ওয়াশিং মেশিনেও কোনো ক্ষতি হয় না।


৬৮ রেটিংয়ের ফোন

বৃষ্টির দিনে বাইরে যেতে নিশ্চয়ই পানিরোধী স্মার্টফোনের কথা মনে হয়। কারণ, অনেক দামী স্মার্টফোন ভিজে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কিন্তু বাজারে এখন পানিরোধী (ওয়াটারপ্রুফ) ও পানি প্রতিরোধী (ওয়াটার রেজিস্ট্যান্ট) পাওয়া যায়। এসব অ্যান্ড্রয়েড ফোন পানিতে নামালে বা পানিতে পড়ে গেলে নষ্ট হয় না। এখনকার অনেক স্মার্টফোনে বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে ছবি তোলার সুবিধাও আছে। এখনকার অনেক স্মার্টফোন নির্মাতাই আইপি ৬৭ ও ৬৮ রেটিংয়ের ফোন তৈরি করছেন। এসব রেটিংপ্রাপ্ত ফোন পানির স্পর্শে নষ্ট হয় না। তবে অনেক ফোনের ক্ষেত্রে পানি প্রতিরোধী দাবি করা হলেও তা পানিতে নষ্ট হতে পারে। তাই ফোন কেনার আগে এ সম্পর্কে জেনে রাখা ভালো। আইপি ৬৭ ও ৬৮ কী? এ প্রসঙ্গে স্যামসাং বাংলাদেশর প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপক শাহরিয়ার হোসেন জানান, আইপি মানে ইনগ্রেস প্রটেকশন। ফোনের মধ্যে যেকোনো প্রটেকশন বা সুরক্ষার মাত্রা বোঝাতে এটি ব্যবহার করা হয়। প্রথম ডিজিট ৬ মানে সলিড অবজেক্ট বা ধুলোবালু বা সূক্ষ্ম পার্টকেল ঢোকার ক্ষেত্রে সুরক্ষার মাত্রা। এর সর্বোচ্চ মাত্রা ৬ পর্যন্ত। কোনো আইপি ৬ দেখালে তা ‘ডাস্ট টাইট’ বা ধুলোবালু সুরক্ষিত। এতে ডাস্ট ঢুকে তা নষ্ট করতে পারবে বা তাতে সুরক্ষা মাত্রা সর্বোচ্চ ব্যবহার করা হয়েছে। পরের ডিজিট পানি বা অ্যাসিড বাদে অন্য লিকুইড বা তরলের বিপরীতে প্রটেকশন বা সুরক্ষার মাত্রা কতটা শক্তিশালী তা বোঝায়। এটার সর্বোচ্চ মাত্রা ৯। আইপি ৬৯ হলে তাকে বলা হয় স্প্ল্যাশপ্রুফ। আর আইপিড ৬৮ মানে হচ্ছে দেড় মিটার পানির নিচে এ ফোন আধা ঘণ্টা টিকতে পারবে। হালকা ওয়েভ বা ঢেউ এটা সুরক্ষা দিতে পারে। ৬৭ সুরক্ষার মাত্রা হলে তা এক মিটার পানির নিচে সর্বোচ্চ আধা ঘণ্টা টিকতে পারে। এটি হালকা মৃদু ঢেউ নিতে পারবে। ৬৯ পুরো ঢেউ বা ওয়াশিং মেশিনেও কোনো ক্ষতি হয় না।